বিজ্ঞাপন

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত

February 22, 2020 | 9:46 pm

কলম্বো, শ্রীলঙ্কা থেকে

প্রায় ৩৫০ স্কুল শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে শ্রীলঙ্কার কলম্বোতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করেছে বাংলাদেশ হাইকমিশন। শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) কলম্বোর ঐতিহাসিক স্বাধীনতা চত্বরে এই উদযাপনের আয়োজন করা হয়।

বিজ্ঞাপন

শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে ও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীরা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রিয়াজ হামিদুল্লাহ তার বক্তব্যে শ্রীলঙ্কা সরকার ও বাংলাদেশ হাইকমিশনের যৌথ উদ্যোগে এই উম্মুক্ত প্রাঙ্গণে মাতৃভাষাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জাতি-ধর্ম-জনগোষ্ঠীর মাঝে সংহতি সুদৃঢ় করার বিষয়ে দূতাবাসের উদ্যোগ ও প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন।

প্রধানমন্ত্রী রাজাপাকসে, শিক্ষামন্ত্রী বান্দুলা গুণাবর্ধনা ও প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রফেসর জি এল পেরিস শ্রীলঙ্কা সরকারের সঙ্গে এ ধরণের ব্যাপক ও সৃষ্টিশীল উদ্যোগ গ্রহণের জন্য রাষ্ট্রদূত ও দূতাবাসের প্রশংসা করেন।

বিজ্ঞাপন

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী রাজাপাকসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে কেন্দ্র করে শ্রীলঙ্কাজুড়ে দুমাসে ব্যাপী স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে দূতাবাস যে চিত্রাংকন-রচনা-কবিতা প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে তাতে চূড়ান্তভাবে বিজয়ী নয় জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে সার্টিফিকেট ও নগদ পুরস্কার প্রদান করেন।

বিজ্ঞাপন

আরও ৩০ জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। এর মাধ্যমে শ্রীলঙ্কার প্রত্যন্ত অঞ্চলের স্কুলে বাংলাদেশের পরিচিতি তথা ভাবমূর্তি উল্লেখযোগ্যভাবে উপস্থাপন করা হয়।

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত

বিজ্ঞাপন

পুরস্কারবিতরণ শেষে কলম্বোভিত্তিক রাশিয়ান সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, মালদ্বীপ শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, চীনা সাংস্কৃতিককেন্দ্র, আঁলিয়াস ফ্রসেস এবং অন্যান্য সংগঠনের শিল্পীরা একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। সেখানে শিল্পীরা তাদের দেশীয় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে তুলে ধরে গান ও বাদ্যযন্ত্র পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানের সূচনাপর্বে শ্রীলঙ্কার একটি সংগীত গোষ্ঠী ‘আমার ভায়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটি দলীয়ভাবে পরিবেশন করেন। এবং অনুষ্ঠানের শুরুতে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

সারাবাংলা/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন