array(4) {
  [0]=>
  string(106) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2020/02/Deans-Award-at-Sherebangla-Krishi-27-02-2020-1-30x23.jpg"
  [1]=>
  int(30)
  [2]=>
  int(23)
  [3]=>
  bool(true)
}
শেকৃবিতে ৪৩ শিক্ষার্থী পেলেন এএসভিএম ডিন’স অ্যাওয়ার্ড

বিজ্ঞাপন

শেকৃবিতে ৪৩ শিক্ষার্থী পেলেন এএসভিএম ডিন’স অ্যাওয়ার্ড

February 27, 2020 | 12:18 am

শেকৃবি করেসপন্ডেন্ট

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যানিম্যাল সায়েন্স অ্যান্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন (এএসভিএম) অনুষদের পাঁচ লেভেলের ৪৩ শিক্ষার্থী পেয়েছেন ডিন’স অ্যাওয়ার্ড। ২০১৮ সালের পরীক্ষার ফলের ওপর ভিত্তি করে তাদের এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। একই আয়োজনে অনুষদের নবীন বরণও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে ডিন’স অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের হাতে অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন প্রধান অতিথি উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ।

সামগ্রিক ফলাফল বিবেচনা ও নীতিমালা অনুসরণে যারা একই লেভেলের দুই সেমিস্টারেই ৩ দশমিক ৮ বা এর চেয়ে বেশি জিপিএ অর্জন করেছেন, তাদের ডিন’স অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত করা হয়।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, যেকোনো ধরনের স্বীকৃতি মানুষের মনকে আলোড়িত করে। স্বীকৃতি ভবিষ্যৎ পথ চলার পাথেও হয়ে দাঁড়াবে। তেমনি ডিন’স অ্যাওয়ার্ড আন্তর্জাতিক শিক্ষাঙ্গনে একটি গুরুত্বপূর্ণ অ্যাওয়ার্ড। এই সম্মাননা শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনের একটি মাইলফলক।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে শেকৃবি উপাচার্য আরও বলেন, এই সফলতা সেদিনই সার্থক হবে যেদিন তোমরা কর্মক্ষেত্র প্রবেশ করে দেশ ও জাতিকে উপযুক্ত সেবা দিতে পারবে।

অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল হক বেগের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপউপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সেকেন্দার আলী, প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. আব্দুল জব্বার সিকদার, আজাদ গ্রুপে ম্যানেজিং ডিরেক্টর আবুল কালাম আজাদ।

এ বছর ডিন’স অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন মুন্সিগঞ্জের মনাইর কান্দি গ্রাম থেকে উঠে আসা কৃতি শিক্ষার্থী মো. রহমত উল্লাহ। তিনি এর আগেও দুই বছর একই অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। রহমত উল্লাহ সারবাংলাকে বলেন, পরপর তিন বার ডিন’স অ্যাওয়ার্ড পেয়ে আমি খুবই খুশি। দেশ হিসেবে আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। তবে ডিম ও দুধের ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছি। তাই লাইভস্টক ও ডেইরি খাতের উন্নয়নে আমি কাজ করতে চাই।

ওরিয়েন্টশেন অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রথম বর্ষের নবীন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। পরে অনুষদ সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের সামনে প্রেজেন্টেশন তুলে ধরেন অধ্যাপক ড. মো. মোফাজ্জল হোসাইন।

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন