বিজ্ঞাপন

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি আগুনে ঘি ঢালার সামিল: বাংলাদেশ ন্যাপ

February 27, 2020 | 6:12 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: হঠাৎ করে আবারও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে জনস্বার্থবিরোধী আখ্যা দিয়ে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) বলেছে, ‘এটি আগুনে ঘি ঢালার সামিল।’ বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা দেওয়ার পর গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

তারা বলেন, ‘বিদ্যুৎ খাতকে দুর্নীতিমুক্ত করলে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রয়োজন হতো না। বিদ্যুৎখাতে দুর্নীতি চরমভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। অথচ সরকার সেই দুর্নীতি বন্ধ না করে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির মাধ্যমে দুর্নীতিবাজদের পক্ষে ও জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নিলো।’

নিয়োগ, ক্রয়, উৎপাদন, সঞ্চালন ও সেবাখাতে চরম দুর্নীতি বিরাজ করছে উল্লেখ করে নেতারা বলেন, ‘গণমাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে আমরা জেনেছি গত ১২ বছরে বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান রেন্টাল, কুইক রেন্টাল কোনো প্রকার বিদ্যুৎ সরবরাহ না করেও ৫৩ হাজার কোটি টাকা পিডিপির কাছ থেকে নিয়েছে। জনগণের কাছ থেকে এভাবে অর্থ আদায় করে অনৈতিকভাবে কতিপয় ব্যক্তিকে সুবিধা দেওয়া কাম্য নয়।’

বিজ্ঞাপন

ফের বাড়লো বিদ্যুতের দাম

তারা বলেন, ‘বর্তমানে জীবনযাত্রার ব্যয়সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। দেশে বাজার ব্যবস্থা লাগামহীন। এর মধ্যে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির মাধ্যমে সরকার আগুনের মধ্যে ঘি ঢালার ব্যবস্থা করলো। বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির এ ঘোষণা বর্তমান সময়ে যথাপযুক্ত নয়।’

ন্যাপ নেতৃদ্বয় আরও বলেন, ‘দুর্নীতি ও ভুল নীতিতে লাগামহীন বিদ্যুৎখাত। দুর্নীতি উচ্ছেদে কোনো পদক্ষেপ নেই। অথচ অযৌক্তিকভাবে দফায় দফায় দাম বাড়ানো হয়েছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনের সরঞ্জাম, বিদ্যুৎ উৎপাদন সব ক্ষেত্রেই দুর্নীতি চলমান। এই দুর্নীতি রোধ করতে পারলে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির কোন প্রয়োজন হতো না।’ জনদুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করারও দাবি জানান নেতারা।

সারাবাংলা/এজেড/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন