বিজ্ঞাপন

হুমায়ুন আজাদকে স্মরণ, বাংলা সাহিত্যের আন্তর্জাতিকতার দাবি

February 27, 2020 | 11:07 pm

পার্থ সনজয়

বয়সের ভারে ন্যুব্জ ‘আগুনমুখার মেয়ে’খ্যাত নূরজাহান বোস হুইল চেয়ারে চড়েই মেলায় এলেন ২৬তম দিনে। বেশ খুশি গলায় বললেন, এত বছর পরও আমার লেখা আনন্দ পুরস্কার জেতা ‘আগুনমুখার মেয়ে’ ইউপিএলে পাঠক আগ্রহ ভরে কিনছে, আমার চোখে পানি চলে আসছে। আমি নিজেই আগুন মুখার মেয়ে। এ আমার গর্ব।

বিজ্ঞাপন

নূরজাহান বোসের মতো বর্ষীয়ান লেখকের কাছে এবারের মেলা স্বস্তিদায়ক। তবে ধীরে ধীরে সম্প্রসারিত অমর একুশে বইমেলায় সময়ের সঙ্গে নতুন দাবি উঠেছে, বাংলা ভাষায় রচিত সাহিত্যের আন্তর্জাতিকতা।

অন্যপ্রকাশের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম বলছেন, ‘এই লক্ষ্যে আমরা কাজ শুরু করে দিয়েছি। আমাদের সেরা সাহিত্যগুলোকে আমরা বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদের মাধ্যমে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে দিতে কাজ করছি।’ তবে এজন্য সরকারের পৃষ্ঠপোষতা জরুরি— সেটাও বলেন মাজহার।

বিজ্ঞাপন

ভাষাচিত্রের খোন্দকার সোহেলও বলছেন, এটি (আন্তর্জাতিকতা) এখন সময়ের দাবি। ভাষাচিত্র এ লক্ষ্যে অনুবাদ সেল তৈরি করছে। বাংলা ভাষার সাহিত্যকে বিশ্বের কাছে ছড়িয়ে দেওয়ার চ্যালেঞ্জটা নিতেই আমরা কাজ করছি।

এমনিতে কর্মদিবসের শেষ দিনে পাঠক-প্রকাশক কারোই ফুরসত ছিল না। স্টল থেকে স্টলে পাঠক ছুটেছে তার চাহিদার বইটি কিনতে।

পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্সে গণমাধ্যম ব্যাক্তিত্ব খ ম হারূন দেখছিলেন পলাশ মাহবুবের অ্যাডভেঞ্চার কাহিনী ‘গুপ্তবাবুর গুপ্তধন’। এই প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত পলাশ মাহবুবের ‘লজিক বাবু’ সিরিজ এর মধ্যেই কিশোর পাঠকদের কাছে আলাদা জায়গা করে নিয়েছে। এর মধ্যেই শেষ হয়েছে এর তৃতীয় মুদ্রণ।

মুজিববর্ষকে সামনে রেখে মেলায় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বইয়ের চাহিদাও বেশ। তেমনই একটি বই কথাপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত শেখ সাদীর ‘বঙ্গবন্ধু অভিধান’।

২৬তম দিনে মেলায় নতুন বই এলো ১৫৫টি। আর ২৬ দিনে মেলায় এলো মোট ৪ হাজার ৩৯৪টি বই।

এর মধ্যে মুক্তধারা নিউইয়র্ক এনেছে আদনান সৈয়দের ‘শিপ জাম্পার বাঙালির আমেরিকা যাত্রা’, বর্ষা দুপুর এনেছে সৈয়দ শামসুল হকের ‘সীমান্তের সিংহাসন’।

এদিকে, বিকেলের মেলায় বাংলা একাডেমির বর্ধমান হাউজের সামনে লেখক পাঠক ও প্রকাশক ফোরামের আয়োজনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদী সমাবেশে দাবি করা হয় হুমায়ুন আজাদ হত্যার বিচার। প্রতিবাদী এই আয়োজনে অংশ নেন বাংলা একাডেমি মহাপরিচালক হাবিবুল্লাহ সিরাজী, ছড়াকার লুৎফর রহমান রিটন, হুমায়ুন আজাদ তনয়া মৌলী আজাদ ও হুমায়ুন আজাদের বইয়ের প্রকাশক আগামী প্রকাশনীর ওসমান গণি। ২০০৪ সালের এই দিনে বইমেলা থেকে ফেরার পথে জ্যোর্তিময়ী লেখক হুমায়ুন আজাদকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে মৌলবাদী গোষ্ঠী।

মূল মঞ্চে এদিনের আলোচনার বিষয় ছিল বাংলা একাডেমি প্রকাশিত শামসুজ্জামান খান সম্পাদিত ‘বঙ্গবন্ধু: নানা বর্ণে নানা রেখায়’ বইটি। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আহমাদ মাযহার। সভাপতিত্বে ছিলেন অধ্যাপক মাহফুজা খানম।

শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) মেলার দ্বার খুলবে সকাল ১১টায়। সকালে যথারীতি থাকছে শিশু প্রহর।

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন