বিজ্ঞাপন

সোনা ও হীরার গুণগতমান নিয়ন্ত্রণে নীতিমালা করা হবে

February 27, 2020 | 11:31 pm

সারাবাংলা ডেস্ক

ভোক্তা পর্যায়ে মানসম্মত অলংকার নিশ্চিত করতে সোনা ও হীরার গুণগতমান নিয়ন্ত্রণে নীতিমালা করা হবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। এই নীতিমালা প্রণয়ন করতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে নীতিমালা প্রণয়ন কমিটি গঠনেরও নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে তাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি এ নির্দেশনা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) শিল্প মন্ত্রণালয়ে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বৈঠকে বাজুস সভাপতি এনামুল হক খান, সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা, সাবেক সভাপতি এম এ ওয়াদুদ খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডা. দেওয়ান আমিনুল ইসলাম শাহিন, কোষাধ্যক্ষ পবিত্র চন্দ্র ঘোষ, সহসম্পাদক মো. রিপনুল হাসান এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

বৈঠকে জুয়েলারি শিল্পের সম্ভাবনা ও বর্তমান সমস্যা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এসময় সমিতির নেতারা বলেন, সরকার জুয়েলারি শিল্পের উন্নয়নে ‘স্বর্ণ নীতিমালা ২০১৮’ প্রণয়ন করেছে। এ নীতিমালার ৫ নম্বর অনুচ্ছেদে সোনার মান প্রণয়ন, যাচাই ও নিয়ন্ত্রণের জন্য হলমার্ক পদ্ধতি বাধ্যতামূলক করা হলেও এখন পর্যন্ত তা কার্যকর হয়নি। সোনা ও হীরার হলমার্কিংয়ের উপযুক্ত ল্যাব না থাকায় ক্রেতা-ভোক্তারা প্রতারিত হচ্ছেন। তারা সোনা ও হীরার তৈরি জুয়েলারি গুণগতমান নিয়ন্ত্রণে দ্রুত একটি নীতিমালা প্রণয়নের দাবি জানান। একইসঙ্গে দেশীয় জুয়েলারি শিল্পের বিকাশে সোনার বার আমদানি শুল্ক পুনঃনির্ধারণ এবং বন্ড সুবিধা সহজ করতে শিল্পমন্ত্রী দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, জুয়েলারি শিল্পের সঙ্গে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান যুক্ত। বর্তমান সরকার দেশীয় শিল্প বিকাশের মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরিতে গুরুত্ব দিচ্ছে। এ শিল্পের স্বার্থ রক্ষায় সরকার সম্ভব সব ধরনের নীতি সহায়তা দেবে।

ভোক্তাদের স্বার্থে সোনা ও হীরার তৈরি জুয়েলারির গুণগতমান নিশ্চিত করার তাগিদ দেন শিল্পমন্ত্রী। এসব জুয়েলারির হলমার্কিংয়ের জন্য ল্যাবরেটরি সুবিধা তৈরিতে বিএসটিআইয়ের সক্ষমতা বাড়ানো হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

ফাইল ছবি

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন