বিজ্ঞাপন

বারান্দা বাগান: এক টুকরো শান্তি

March 16, 2020 | 10:30 am

লাইফস্টাইল ডেস্ক

ইট পাথরের এই নগরীতে বাগান করার জন্য এক চিলতে জায়গা পাওয়া শুধু কঠিনই না, অনেকসময় অসম্ভব। তাই ছোট্ট বারান্দাই ভরসা। বাসায় যারা গাছ লাগাতে ভালোবাসেন তারা বারান্দাই বেছে নেন। বারান্দা বাগান করা কঠিন কিছু না, নিয়মিত পরিচর্যা করলেই বারান্দা হয়ে উঠবে এক টুকরো ‘সবুজ বাগান’।

বিজ্ঞাপন

বারান্দা বাগানের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় জেনে রাখা ভালো-

কেমন গাছ নির্বাচন করবেন?

বিজ্ঞাপন

বারান্দা বাগানের জন্য নার্সারিতে নানারকম গাছ কিনতে পাওয়া যায়। পছন্দের গাছ কিনে এনে অনায়াসেই বারান্দা সাজিয়ে ফেলা সম্ভব। বারান্দায় রোদ থাকলে কিছু ফলের গাছ লাগানো যেতে পারে। যেমন: লেবু, হাইব্রিড আম ইত্যাদি। আর বাহারি ফুলের গাছ বারান্দায় নিশ্চিন্তে লাগানো যায়। জুঁই, অর্কিড, বেলি, গোলাপ, টগর, দোলনচাঁপাসহ নানা ধরনের ফুলের গাছ বারান্দার শোভা বাড়ায়। এছাড়া পাতাবাহার, মানিপ্ল্যান্টও রাখতে পারেন।

টব বাছাই

বারান্দার জন্য মাটি বা প্লাস্টিকের টব ব্যবহার করা যায়। কাঠের টবও কিনতে পারেন। গাছের ধরন অনুযায়ী টব নির্বাচন করতে হবে। একেক গাছের জন্য মাটির পরিমাণ একেকরকম হয়। ফলে সেই বিষয়টি মাথায় রেখে টব কিনতে হবে।

পানি

বৃষ্টি ছাড়া অন্যান্য সময় প্রতিদিন গাছে পানি দিতে হবে। তবে টবে পানি জমে থাকলে নতুন করে পানি দেওয়ার দরকার নেই। বৃষ্টি হলে গাছে পানি দেওয়া যাবে না। মনে রাখা ভালো, টবের মাটি যেন খুব শুষ্ক কিংবা একেবারে ভেজা না থাকে।

সার

বারান্দার গাছেও মাঝে মাঝে অল্প পরিমাণে সার দিতে হয়। জৈব সার মাসে অন্তত ১ বার দিতে পারেন। ঘরেও জৈব সার বানানো যায়। তরকারির খোসা ছোট করে কেটে গাছের গোড়ায় ছিটিয়ে দিতে পারেন। এছাড়া ব্যবহৃত টি-ব্যাগ থেকে চা পাতা বের করে গাছের গোড়ায় দিতে পারেন। কেনার চেয়ে বাসায় বানানো সার গাছের জন্য বেশি উপকারি।

আলো

গাছের জন্য প্রাকৃতিক আলো, বাতাস খুবই উপকারি। খোলামেলা জায়গায় থাকলে গাছ ভালোভাবে বেড়ে ওঠে।

কীটনাশক

পাতাজাতীয় গাছে সাধারণত পোকামাকড় লাগার সম্ভাবনা বেশি থাকে। এছাড়া রোগ-জীবাণুর আক্রমণেও পাতা কুঁকড়ে যেতে পারে। এরকম কোন সমস্যা দেখা দিলে গাছে স্প্রে করতে হবে। তবে কোন সমস্যার জন্য কী ধরনের স্প্রে লাগবে তা কেনার সময় দেখে নিতে হবে।

একটু সাজাতে চাইলে…

বাজারে এখন বাহারি টব পাওয়া যায়। চাইলে রঙিন পাথর দিয়ে টব সাজাতে পারেন। মাটির টবে পছন্দমতো আল্পনা এঁকে নিতে পারেন। গ্রিলের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা গাছগুলোর জন্য মাটির তৈরি সুন্দর ডিজাইনের টব বেছে নিতে পারেন। পাটের দড়ির সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখলে বেশ ভালো দেখাবে।

বসার ব্যবস্থা

বারান্দায় বাগান থাকলে একটু বসতে কার না ভালোলাগে! চাঁদনী রাত, ভোরবেলা কিংবা শেষ বিকেলে একটু বসতে ইচ্ছা করতেই পারে। বারান্দা আকারে কিছুটা বড় হলে একপাশে বেত, বাঁশ, কাঠের টুল বা চেয়ার রাখতে পারেন।

বারান্দায় যে ধরনের গাছ-ই লাগানো হোক না কেন, সঠিক পরিচর্যা ও সুন্দরভাবে সাজিয়ে রাখার ওপরই নির্ভর করবে আপনার বারান্দা কতটা নান্দনিক হবে।

ছবি: ফাহমিদা হায়দার সোমা ও শহীদ উল্লাহ দম্পতির চট্টগ্রামের বাসা থেকে তোলা।

সারাবাংলা/টিসি

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন