বিজ্ঞাপন

ইশারা ভাষায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ

মার্চ ১৭, ২০২০ | ১১:১২ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ইশারা ভাষায় রূপান্তর করেছে মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে লাখো বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের মাঝে ভাষণটি ছড়িয়ে দিতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) গ্রামীণফোনের পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ বাঙালি জাতি ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সনদ। তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবরের এই আগুনঝরা ভাষণই সেদিন দিয়েছিল সাহস আর স্বাধীন বাংলদেশ দেখার স্বপ্ন। এই ভাষণে তিনি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমানে বাংলাদেশ) বাঙালিদের স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত হওয়ার আহ্বান জানান।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর শেষে ইউনেস্কো ৭ মার্চের ভাষণকে ‘ডক্যুমেন্টারি হেরিটেজ’ (বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য) হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতার এই অনবদ্য দলিল সব বাঙালিসহ সারাবিশ্বের মানুষের কাছে এক অনুপ্রেরণা হয়ে আছে।

জিপি বলছে, সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে বাংলাদেশের লাখো বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের মাঝে এই অনুপ্রেরণা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য এই ঐতিহাসিক ভাষণকে বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের ইশারার ভাষা বা sign language-এ রূপ দেওয়ার উদ্যোগ নেয় গ্রামীণফোন। সেই প্রচেষ্টা থেকেই সৈয়দ হাসান ইমাম, অপি করিম, তাহসান খান, আরাফাত সুলতানা লতা, বিদ্যা সিনহা মীম, মাসুমা রহমান নাবিলা, মনোজ প্রামাণিক, আফরান নিশো ও গাওসুল আলম শাওনদের মতো মিডিয়া ব্যক্তিত্বদের দিয়ে ইশারার ভাষায় পুরো ভাষণটিকে ধারণ করা হয়।

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন