বিজ্ঞাপন

সীমিত মাত্রায় ‘কমিউনিটি ট্রান্সমিশন’: আইইডিসিআর

মার্চ ২৫, ২০২০ | ৩:৩৯ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পুরোপুরি কমিউনিটি ট্রান্সমিশন পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়েনি। তবে সীমিত আকারে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়ে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৫ মার্চ) আইইডিসিআর থেকে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত ব্রিফিংয়ে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

অধ্যাপক ফ্লোরা বলেন, ‘অনেকের মাঝেই এই আলোচনাটি দেখেছি যে, বাংলাদেশে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়েছে কি না। এরই মধ্যে আপনারা জানেন, আমরা দুইটি ক্ষেত্রে তদন্ত করছিলাম। এখন পর্যন্ত সেটার ‘সোর্স অব ইনফেকশন’ (সংক্রমণের উৎস) জানা যায়নি। সেক্ষেত্রে এটি সীমিত মাত্রায় কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়ে থাকতে পারে বলে আমরা মনে করি। কিন্তু এটি আমি আগেও বলেছি, কমিউনিটি ট্রান্সমিশন বলার ক্ষেত্রে আমাকে বিস্তারিত তথ্য বিশ্লেষণ করতে হবে। কারণ সেটি আমাকে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার কাছে বিস্তারিত তথ্য-উপাত্তসহ পেশ করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, সীমিত মাত্রায় যে এলাকাটি নিয়ে আমরা কথা বলেছি, সেই এলাকায় লোকাল ট্রান্সমিশন হয়ে থাকতে পারে। এটা ভেবেই কিন্তু সেখানে সাময়িকভাবে সামাজিক বিচ্ছিন্নকরণ নিশ্চিত করে তা প্রতিরোধ করার ও নিয়ন্ত্রণ করার কার্যক্রম নিয়েছি। সারা বাংলাদেশে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়েছে- এখন পর্যন্ত এমন কোনো পরিস্থিতি হয়নি। এরই মধ্যে দেখেছেন, গতকালও আমরা যে তথ্য জোগাড় করেছি তার ভিত্তিতে যে নমুনা সংগ্রহ করেছি, তাতে এখন পর্যন্ত করোনায় শনাক্তের হার অনেক কম।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও একজন মারা গেছেন। এ নিয়ে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা পৌঁছাল ৫ জনে। তবে, এই ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কেউ সংক্রমিত হননি।

দেশে এখন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩৯ জন। চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন সাত জন।

সারাবাংলা/এসবি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন