বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ জাতিকে হতাশ করেছে: মান্না

মার্চ ২৬, ২০২০ | ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: মহান স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া জাতির উদ্দেশে ভাষণ জাতিকে হতাশ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে বর্তমান পরিস্থিতি এবং পরবর্তী সময়ে অর্থনৈতিক চাপ সামাল দেওয়ার জন্য কোনো উদ্যোগের কথা ছিল না। এত বড় বৈশ্বিক দুর্যোগের সময়ে দেশের প্রান্তিক জনগণের কথা মাথায় রেখে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি করোনা মোকাবিলায় সরকারের ব্যর্থতা আড়াল করতে গিয়ে তিনি মিথ্যাচার করেছেন। জাতি এ ভাষণে হতাশ।

বুধবার (২৫ মার্চ) প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের পর এক বিবৃতিতে মান্না এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, গত ২৪ মার্চ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংবাদ সম্মেলনে নাগরিক ঐক্যের পক্ষ থেকে বর্তমান পরিস্থিতি এবং পরবর্তীতে অর্থনৈতিক দুর্যোগ সামাল দিতে কিছু সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা দিয়েছিলাম। সেগুলোর প্রতিফলন ঘটলে আমরা এই ভয়াবহ দুর্যোগ সামাল দিতে পারতাম। কিন্তু সেটা হয়নি।

মান্না বলেন, চীনে করোনার প্রাদুর্ভাব হওয়ার পর থেকেই দেশের বিমান ও স্থলবন্দরগুলোতে ব্যবস্থা নেওয়ার যে কথা তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন, তা বাস্তবতা বিবর্জিত। আমরা দেখেছি, সেসময় কেবলমাত্র শাহজালাল বিমানবন্দরের একটিমাত্র থার্মাল স্ক্যানার সচল ছিল। অন্য কোনো জায়গায় সেটাও ছিল না। চিকিৎসা উপকরণ, করোনা পরীক্ষার কিট, চিকিৎসকদের পিপিই সংকট নেই বলে তিনি যে মিথ্যাচার করেছেন, তা দেশের এত বড় সংকটকালে কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। বস্তুত আমাদের সরকার একটি বিশেষ দিবসকে সামনে রেখে করোনাকে আড়াল করে রেখেছিল।

সরকার একের পর এক ভুল ও অগোছালো সিদ্ধান্ত নিয়ে দেশে করোনার ঝুঁকি বাড়িয়েছে দা‌বি ক‌রে মান্না ব‌লেন, সর্বশেষ গণপরিবহন বন্ধ না করে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করায় যে পরিস্থিতি হয়েছে, তা আমরা সবাই দেখেছি। এসব কারণেই করোনাভাইরাস এখন কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের পর্যায়ে চলে গেছে।

তি‌নি ব‌লেন, কেবল বৈদেশিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে কিছু প্রণোদনা দিয়ে সরকার দেশের লাখ লাখ পোশাককর্মীদের প্রতি দায় এড়িয়ে গেছে। দেশের গরীব, দিনমজুর, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, বেসরকারি চাকরিজীবীসহ নিম্নবিত্ত জনগণের জন্য কোনো আপৎকালীন কর্মসূচির কথা প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে উঠে আসেনি। এরকম একটি পরিস্থিতিতে জনগণ প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে যে আশা খুঁজতে চেয়েছিল, তার ছিঁটেফোটাও ছিল না তার ভাষণে। তাই আরও একবার প্রমাণিত হলো— জনগণের ম্যান্ডেটহীন সরকার এবং সেই সরকারের প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে জনগণ কিছুই আশা করতে পারে না।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, এ কারণে আজ জনগণকেই এগিয়ে আসতে হবে। করোনাসহ সব দুর্যোগ মোকাবিলা এবং একটি কল্যাণরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য জনগণকেই কাজ করতে হবে। করোনাভাইরাস এবং পরবর্তী সময়ে যেকোনো দুর্যোগ মোকাবিলায় নাগরিক ঐক্য জনগণের পাশে থাকবে।

ফাইল ছবি

সারাবাংলা/এমএমএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন