বিজ্ঞাপন

নেটফ্লিক্সের জন্য ওয়াহিদের ‘স্টারবিম’

মার্চ ২৬, ২০২০ | ৪:১৭ অপরাহ্ণ

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপনডেন্ট

অভিনেতা ওয়াহিদ ইবনে রেজা একের পর নিজের স্বপ্নকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। অস্কারে মনোনয়ন পাওয়া ‘গার্ডিয়ানস অব দ্য গ্যালাক্সি টু’ ও ‘ডক্টর স্ট্রেঞ্জ’ ছবিগুলোর অ্যানিমেশন দলে কাজ করছিলেন। ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস দলের সমন্বয়ক ছিলেন ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকাঃ সিভিল ওয়ার’ এবং ‘ব্যাটম্যান ভার্সেস সুপারম্যান’ ছবিগুলোতে।  তিনি এবার কাজ করলেন প্রি-স্কুলের বাচ্চাদের জন্য অ্যানিমেটেড শো ‘স্টারবিম’-এ। শোটির ডেভেলপমেন্টের পর্যায়ে ক্রিয়েটিভ কনসালটেন্ট হিসেবে ছিলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

‘স্টারবিম’র ট্রেলার মুক্তি পেয়েছে কিছুদিন আগে।  শোটির সাথে যুক্ত হবার পেছনের গল্প জানালেন ওয়াহিদ ইবনে রেজা।

২০১৬ সালে মেথড ভিএফএক্স স্টুডিওতে, ভিএফএক্স কোঅর্ডিনেটর হিসেবে কাজ করার সময় এনিমেটেড শর্টফিল্ম দ্য প্যারানয়েড ক্যাট বানিয়েছিলেন। তখন সবে । ক্যাপ্টেন আমেরিকা: সিভিল ওয়ারে মাত্র কাজ শেষ করেছেন।

বিজ্ঞাপন

সেই শর্টফিল্ম নিয়ে ফেস্টিভ্যাল ঘুরে এসে অফিসে জয়েন করেন ডক্টর স্ট্রেঞ্জের ভিএফএক্স দলে। যেই ফিল্মটি পরে অস্কার নমিনেশন পায় ভিএফএক্স এর জন্য।

বাইরের এই দেশগুলোতে, একটি সিরিজ বা মুভি যখন পিচ করা হয়, মানে কোন স্টুডিওর কাছে জমা দেয়া হয়, তখন একটি বিশাল ডকুমেন্ট বানানো হয়। যেটা ৫-৬ পৃষ্ঠা থেকে শুরু করে ৩০-৪০, কোন কোন ক্ষেত্রে শত পৃষ্ঠা পর্যন্ত হতে পারে। এই ডকুমেন্ট কে বলা হয় বাইবেল।

ওয়াহিদ জানান, প্রথমে তিনি মিনি বাইবেল লিখেন। পরিচিত এক ভাইকে দিয়ে আর্টও করান। কিন্তু কপালে জুটে প্রত্যাখান। এরপর ২০১৭ সালে একটা নেটওয়ার্কিং ইভেন্টে যান তিনি। ভ্যাঙ্কুভার বেস্ড বিভিন্ন প্রোডাকশন কোম্পানি ওপেন সাবমিশন নিবে রাইটারদের কাছ থেকে। সেখানে একজন এক্সিকিউটিভ আইডিয়া চাচ্ছিলেন তার এনিমেশন স্টুডিওর জন্য।

নানা ঘটনার পর মিনি বাইবেলগুলো দেখে তাকে নিযুক্ত করা হয় ক্রিয়েটিভ কনসালটেন্ট হিসেবে।

বাংলায় প্রথম থ্রিডি অ্যানিমেশন কার্টুন সিরিজ চাচা বাহিনীর আজব কাহিনির প্রযোজক ছিলেন। মুক্তিযোদ্ধা বাবার প্রতি অনুপ্রাণিত হয়ে বাংলাদেশের প্রথম মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক টুডি অ্যানিমেশন চলচ্চিত্র সারভাইভিং:৭১ তৈরি করেন।

সারাবাংলা/এজেডএস/

Advertisement
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন