বিজ্ঞাপন

করোনায় নতুন আক্রান্ত নেই, সুস্থ হয়েছেন আরও ৪ জন

March 28, 2020 | 12:19 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে কেউ করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হননি। ফলে দেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত মোট ব্যক্তির সংখ্যা ৪৮ থেকে আর বাড়েনি। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত আরও চার জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। ফলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মোট ৪৮ জনের মধ্যে ১৫ জন সুস্থ হয়ে উঠলেন।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২৮ মার্চ) দুপুর ১২টার পর মহাখালীর রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

অধ্যাপক ফ্লোরা জানান, এ পর্যন্ত মোট এক হাজার ৬৮টি জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা করা হয়েছে নতুন ৪২টি নমুনা। ঢাকার বাইরে চট্টগ্রামেও নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়েছে। সেখানেও গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এই সময়ের মধ্যে নতুন করে কারও শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়নি।

বিজ্ঞাপন

যে ১৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন, তাদের তথ্য তুলে ধরে আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, এই ১৫ জনের মধ্যে ৯ জন পুরুষ, ৬ জন নারী। তাদের মধ্যে ২ বছর বয়সী শিশুও আছে। সর্বোচ্চ বয়স একজনের ৫৪ বছর। এই ১৫ জনের গড় বয়স ২৯ বছর। যারা সুস্থ হয়েছেন, তাদের সর্বোচ্চ ১৬ দিন পর্যন্ত হাসপাতালে থাকতে হয়েছে।

ডা. ফ্লোরা বলেন, নতুন যে চার জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন, তাদের একজনের কিডনিতে সমস্যা ছিল। তাকে ডায়ালাইসিস করতে হচ্ছিল। কোভিড-১৯ সংক্রমণমুক্ত হওয়ায় তিনি এখন তার স্বাভাবিক চিকিৎসা নিচ্ছেন। এছাড়া একজন উচ্চ রক্তচাপের রোগী ছিলেন। বাকি দু’জনের কোনো কো-মরবিডিটি বা অন্য কোনো শারীরিক অসুস্থতা ছিল না।

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বা আক্রান্ত সন্দেহে ২৮৪ জনকে আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর যাদের শরীরে এই ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি, নির্ধারত সময়ের পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে আইসোলেশনে ভর্তি আছেন ৪৭ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের কী চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে— এমন প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক ফ্লোরা বলেন, যার মধ্যে যে লক্ষণ বা উপসর্গ রয়েছে, তাকে সেই অনুযায়ী চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে এবং হচ্ছে। এছাড়া যাদের বিভিন্ন ধরনের কো-মরবিডিটি রয়েছে, তাদের সেসব চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। যারা সুস্থ হয়ে গেছেন, তাদের মধ্যে যাদের অন্য শারীরিক সমস্যাগুলো ছিল, তাদের শুধু সেসব চিকিৎসা স্বাভাবিকভাবে চলছে।

সারাবাংলা/এসবি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন