বিজ্ঞাপন

করোনায় ভীত হবেন না, আমাদের বিজয় হবেই— দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রী

March 31, 2020 | 6:58 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের লড়াইয়ে দেশবাসীকে সাহস ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ লড়াইয়ে বিজয়ের আশাবাদও জানিয়ছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

শেখ হাসিনা বলেন, যেকোনো দুযোর্গ এলে সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করতে হয়। এখানে ভীত হওয়ার কিছু নেই, মনে জোর থাকতে হবে। এরকম অনেক দুর্যোগ আমরা মোকাবিলা করেছি। এটাও মোকাবিলা করে যাচ্ছি, আগামীতেও করব। এই লড়াইয়েও আমরা বিজয় অর্জন করব।

মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) গণভবন থেকে সারাদেশে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকসহ স্থানীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হয়ে সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলমান কার্যক্রম সমন্বয়ের অংশ হিসেবে এই ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- ডিসিদের প্রতি নির্দেশনা: করোনা রোধে জনপ্রতিনিধিদেরও সঙ্গে নিন

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের ঘাটতি নিয়ে সমালোচনাকারীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেকে নানা ধরনের কথা বলেন। এটা নেই, ওটা নেই। আসলে কোনো কিছুর কোনো অভাব নেই। সব ব্যবস্থাই কিন্তু নেওয়া হয়েছে। যারা কথা বলেন, তারা নিজেরা কিছুই জানেন না এবং তাদের গলার স্বর আমরা অনেক পরে দেখেছি। অনেক আগে থেকেই আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। অনেক উন্নত দেশ যা করতে পারেনি, আল্লাহর রহমতে এ পর্যন্ত আমরা কিন্তু তা করতে পেরেছি। আমরা (করোনাভাইরাসের সংক্রমণ) নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। কিন্তু এটা হয়তো আরও কিছুদিন আমাদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। আর ব্যবস্থা না নিলে কিন্তু আমরা এ পর্যায়ে থাকতে পারতাম না।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সাফল্যের আশাবাদ জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, এরকম অনেক দুর্যোগ আমরা মোকাবিলা করেছি। এটাও আমরা মোকাবিলা করে যাচ্ছি, আগামীতেও যাব। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। জাতির পিতা স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। আমরা স্বাধীন জাতি। তার ডাকে সাড়া দিয়ে যুদ্ধ করে বিজয় অর্জন করেছি। কাজেই এখানেও আমরা বিজয় অর্জন করব ইনশাল্লাহ।

আরও পড়ুন- অর্থনৈতিক মন্দা ঠেকাতে এখনই উদ্যোগ নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

দেশবাসীকে কোনো ধরনের গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ ডিজিটাল করেছি বলেই এভাবে আপনাদের সঙ্গে কথা বলতে পারছি। হয়তো ভবিষ্যতে আরও কথা বলব। কিন্তু ডিজিটাল বাংলাদেশের সুযোগ নিয়ে অনেকেই ফেসবুকে বা অনলাইনে নানা ধরনের গুজব ছড়াতে থাকে। শুধু দেশে না, দেশের বাইরে থেকেও কেউ কেউ বলেন। যারা এ ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার করবে, তাদের বিরুদ্ধে সঙ্গে সঙ্গে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আপনারা গুজবে কান দেবেন না। আমরা কিন্তু আমাদের দেশের মানুষের সুরক্ষার জন্য একেবারে প্রথম থেকে পদক্ষেপ নিয়েছি। এমনকি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যেসব নির্দেশনা দিয়েছে, সেই নির্দেশনা পাওয়ার অনেক আগ থেকেই কিন্তু তা বাস্তবায়নের কাজ শুরু করেছি। আমরা সবকিছু একসঙ্গে বন্ধ করিনি। কারণ আামদের দেশের কথা মানুষের কথা চিন্তা করেছি।

আরও পড়ুন- ‘মশাদের গান’ থামাতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

তিনি বলেন, আমরা মানুষকে সুরক্ষিত রাখার সব ব্যবস্থা নিয়েছি বলেই আজ এত ব্যাপক হারে এখনো এই প্রাদুর্ভাব ছড়াতে পারেনি। ভবিষ্যতেও যেন না ছড়াতে পারে, সেদিকেও দৃষ্টি দিতে হবে। আমাদের আরও কিছুদিন কষ্ট করতে হবে। সবার ভালোর দিকে নজর রেখেই আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। ছুটি থাকবে। তবে সীমিত আকারে কিছু অফিস-আদালত চালুর ব্যবস্থা করে দেবো। মানুষের আয়-উপার্জনের কিছু পথ যেন খোলা থাকে, সে ব্যবস্থাটাও আমি নেব।

কারও মধ্যে যদি করোনার কোনো ধরনের লক্ষণ দেখা দেয়, সে বিষয়ে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসদের পরামর্শ গ্রহণ করার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের লক্ষণ হিসেবে আমাদের যেসব নির্দেশনা দেওয়া আছে, সে অনুযায়ী কারও মধ্যে কোনো লক্ষণ থাকলে সঙ্গে সঙ্গে পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করবেন। লুকাতে গিয়ে নিজের সর্বনাশ করবেন না, পরিবারের সর্বনাশ করবেন না। এটা বারবার আমি স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি। আবারও বলছি।

ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী মাদারীপুর, কক্সবাজার, গাইবান্ধা, চুয়াডাঙ্গা, রাজশাহী জেলা, সিলেট বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় ও সচিবালয়ে মন্ত্রী-সচিবদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। গণভবন প্রান্তে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস।

আরও পড়ুন-

‘সচেতন হয়েছি বলেই আমাদের অবস্থা খুব খারাপ নয়’

পিপিই’র সংকট নেই, প্রয়োজন বুঝে ব্যবহারের নির্দেশনা

সাধারণ ছুটি ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়তে পারে, ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর

‘করোনাকালে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ পেলে কাউকে ছাড় নয়’

বৈশাখে লোক সমাগম নয়, ডিজিটাল অনুষ্ঠানের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ হওয়া ফয়সালের অভিজ্ঞতা শুনলেন প্রধানমন্ত্রী

সারাবাংলা/এনআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন