বিজ্ঞাপন

এভ্রিলের বায়োপিক হচ্ছে, বানাচ্ছেন নোমান রবিন

April 5, 2020 | 6:39 pm

আহমেদ জামান শিমুল

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল—মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগীতায় ২০১৭ সালে প্রথম চ্যাম্পিয়ন হন। কিন্তু পূর্বের বিয়ের কথা লুকানোর অপরাধে তার মুকুট কেড়ে নেয় আয়োজকরা। কিন্তু তিনি বারবারই বলে আসছেন আমি বাল্যবিবাহের শিকার। ওই বিয়ে আমি মানি না। তবু সমালোচকরা তার পিছু ছাড়েননি। এখনও প্রতিনিয়ত নানান বাধার সম্মুখীন হচ্ছেন এভ্রিল। শুনতে হয় কটু কথা।

বিজ্ঞাপন

এভ্রিলের জীবন সংগ্রামের গল্প নিয়ে সিনেমা বানাচ্ছেন ‘কমন জেন্ডার’খ্যাত নির্মাতা নোমান রবিন। ‘দ্য হোওর বাংলাদেশ’ বা ‘বাজে মেয়ে’ নাম ছবিটির। নিজের জীবনের গল্পে এভ্রিল নিজেই অভিনয় করছেন। আর এটিকে সরাসরি এভ্রিলের বায়োপিক বলছেন নোমান।

কেনো এভ্রিলের গল্প পর্দায় আনতে চান?

বিজ্ঞাপন

‘একটা মেয়েকে আগের দিন মুকুট পরিয়ে পরেরদিন কেড়ে নেওয়া হলো। ওখানে না হয় ওর ভুল ছিলো। কিন্তু সে যখন লাইভে এসে তার ভুল স্কীকার করে। নিজের জীবনের গল্প বলে। যখন বলে সে বাল্যবিবাহের শিকার। কিশোরী বয়সে নানান নির্যাতনের সম্মুখীন হয়েছে সে। এখনও একা চলতে গিয়ে নানা প্রতিবন্ধকতা পার করতে হচ্ছে। তখন কিছু মানুষ তাকে গালি দেয়—বাজে মেয়ে, বেশ্যা বলে। তখন ওই মানুষটার কেমন লাগে? সে কীভাবে বাঁচে। আমরা তার ভুলগুলো ভুলে নতুন করে জীবন গড়তে দিতে চাই না। এটা যে কত ভয়াবহ অপরাধ তার জন্যই আমাদের সিনেমা নির্মাণ’— বলেন নোমান রবিন।

তিনি আরো বলেন, ‘এভ্রিলের যখন মুকুট কেড়ে নেওয়া হয় দুঃখজনক হলেও সত্যি দেশের বেশকিছু প্রথম শ্রেণীর সংবাদমাধ্যম আমি নাম বলছি না, তারা তার নামে অনেক মিথ্যে সংবাদ ছাপায় কোনরকম যাচাই বাছাই না করেই। তবে এটাও সত্য ওইসময় তাকে অনেক বড় সাপোর্টটা দিয়েছিলো সংবাদমাধ্যমগুলো।’

নোমান রবিন সিনেমাটি নির্মাণের জন্য এভ্রিলের বাবা-মা, এলাকাবাসী, শিক্ষকদের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। এমনকি গোপন ক্যামেরায় সে বরের তিন ঘণ্টার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। গত এক বছর ধরে এ ছবির চিত্রনাট্য লেখা হয়েছে।

নোমান বলেন, ‘এভ্রিল এক বছর আগে আমার কাছে আসে। বলে তার জীবনের গল্পটা বলতে চায়। এর জন্য সে একজন তারকা শিল্পীকে নিতে বলে। কিন্তু আমি ওকেই অভিনয় করতে রাজি করাই। অনেকদিন নারাজি থাকার পর সে রাজি হয়।’

এভ্রিল এখনও সংগ্রাম করছেন, এখনও বলা যায় না প্রতিষ্ঠিত। গল্পে কি তাকে প্রতিষ্ঠিত দেখানো হবে? উত্তরে নোমান বলেন, ‘মূলত এভ্রিল একটা ফাউন্ডেশন করছে বাল্যবিবাহ রোধ করার জন্য। আমরা এ ফাউন্ডেশন নিয়ে তার পথচলা ও সফলতার গল্প বলবো।’

তবে সবকিছু প্রস্তুত করে ‘মিস হোওর বাংলাদেশ’র কাজ অনেকটাই থেমে গেছে। কারণটা জানালেন নোমান রবিন।

‘আমাদের পুরো জার্নিতে একজন প্রযোজক পেয়েছিলাম। কিন্তু তিনি শেষ মুহুর্তে এসে আমাদের সাথে থাকতে পারছেন না, তার পরিবার থেকে আপত্তির কারণে। এখন আমাদের নতুন করে প্রযোজক খুঁজতে হচ্ছে।’

আপাতত প্রযোজক সংকট ও করোনাভাইরাসের কারণে শুটিং না করতে পারলেও ছবিটির একটি পোস্টার প্রকাশ করেছেন নোমান রবিন। এতে দেখা যায় সুন্দরী প্রতিযোগীতার মুকট পরিহিত একজন নারীর এক চোখ দিয়ে অশ্রু জড়ছে। মুখে কসটেপ। তাতে লিখা, ‘হ্যাশ ট্যাগ মি টু’। পোস্টার জুড়ে ফেসবুক, টুটারের নানান কমেন্ট ও সংবাদ কাটিং। এভ্রিলের শরীর জুড়ে নখের আচড়।

এমন পোস্টার চলচ্চিত্রপ্রেমীদের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে। এখন দেখার বিষয় পরিচালক প্রযোজক সংকট কাটিয়ে উঠে ছবিটি পর্দায় তুলে আনতে পারেন কিনা। মানুষের চোখে আঙ্গুল দিয়ে তাদের ভুলগুলো দেখাতে পারেন কিনা।

সারাবাংলা/এজেডএস/

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন