বিজ্ঞাপন

অনিশ্চয়তায় এ বছরের চার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ

April 13, 2020 | 8:04 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট
ঢাকা: করোনাভাইরাসের কারণে এমনিতেই দেশের ক্রীড়াঙ্গন স্থবির হয়ে আছে। ফুটবলের সকল টুর্নামেন্ট অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে অনিশ্চয়তায় পড়ে যাওয়ার শঙ্কা আছে আঞ্চলিক ফুটবল টুর্নামেন্ট সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়েও।

বিজ্ঞাপন

অনেকটা অন্ধকার হয়ে গেছে এ বছর অনুষ্ঠিতব্য চার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। পঞ্জিকা অনুযায়ী চলতি বছরে সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ) চারটি টুর্নামেন্ট হওয়ার কথা ছিল। ছেলেদের অনূ-১৫ ও মেয়েদের সাফ এবং অনূর্ধ্ব-১৮ সাফ ও বঙ্গবন্ধু সিনিয়র (পুরুষ) সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ।

মরণব্যাধী করোনায় চারটি চ্যাম্পিয়নশিপে অনিশ্চিত তালা পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। এমন শঙ্কা খোদ সাফের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক হেলালের, ‘মহামারী করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক না পাওয়া পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না যে, এই চারটি টুর্নামেন্ট এ বছর হবে কিনা।’

বিজ্ঞাপন

চলতি মাসে ভারতে সাফের কংগ্রেস হওয়ার কথা ছিল। সেটাও স্থগিত হয়ে গেছে করোনাক্রান্তির কারণে। এসময় চূড়ান্ত হওয়ার কথা ছিল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ভেন্যু।

কংগ্রেস স্থগিত হওয়ার চূড়ান্ত হলো না ভেন্যুও। এ বছরেই সাফ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা কম দেখছেন সাফ সম্পাদক। হেলাল জানান, ‘করোনা মহামারীর প্রাদুর্ভাব সেপ্টেম্বর নাগাদ থাকলেও পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সময়ে সাফের আসরগুলোর আয়োজন করা সম্ভব হবে বলে মনে হয় না। কারণ আয়োজন শুধু আয়োজক দেশের জন্য চ্যালেঞ্জ নয়, এসব আসরে অংশ নিতে হবে সদস্য দেশগুলোকে। অনেক সময়ের ব্যাপার।’

বিজ্ঞাপন

সিনিয়র পুরুষ ফুটবলের গত ১২ আসরের ৩টির আয়োজক ছিল বাংলাদেশ। ২০০৩ সালে প্রথমবার সাফ আয়োজন করে একমাত্র শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছিল তারা। ২০০৯ সালের প্রতিযোগিতায় সর্বশেষ সেমি-ফাইনালে খেলা বাংলাদেশের পরের চার আসর কেটেছে চরম হতাশায়। চারবারই গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয় লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। সবশেষ গতবার ঢাকার মাঠে এই তেতো স্বাদ নেয় বাংলাদেশ।

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন