বিজ্ঞাপন

শিল্পনির্দেশক, পরিচালক ও শিক্ষক মহিউদ্দিন ফারুক’র ইন্তেকাল

April 17, 2020 | 6:42 pm

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপনডেন্ট

না ফেরার দেশে চলে গেলেন সাতবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত শিল্পনির্দেশক, চলচ্চিত্র পরিচালক ও শিক্ষক মহিউদ্দিন ফারুক। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে আজ (শুক্রবার) দুপুরে তিনি পরলোক গমন করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

বিজ্ঞাপন

গত কয়েকদিন যাবত জ্বর ও সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। তাই তিনি নিজে থেকেই পরিবারের অন্য সদস্যদের কাছ থেকে আলাদা থাকতেন। ফোনের মাধ্যমে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলতেন। কিন্তু আজ (শুক্রবার) দুপুরে তাঁকে নিজ কক্ষে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। এরপর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

মৃত্যুকালে তিনি স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম এন্ড মিডিয়া বিভাগের চেয়ারম্যান হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

মহিউদ্দিন ফারুক ১৯৪১ সালের ৩রা মার্চ, মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার আড়ালিয়া গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। ১৯৬০ সালে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করে তৎকালীন ঢাকা আর্ট কলেজে ভর্তি হন। তিনি শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন এর ছাত্র ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের শহিদদের স্মরণে বি এফ ডি সিতে পরিচালক সমিতির কার্যালয়ের সামনের ভাস্কর্যটির নকশা তাঁর করা।

উদয়ন চৌধুরীর নির্মিত 'পুনম কি রাত' (১৯৬৬) ছবিতে শিল্প নির্দেশক হিসেবে তাঁর চলচ্চিত্র জগতে যাত্রা আরম্ভ। রাজেন তরফদার নির্মিত 'পালঙ্ক' (১৯৭৫), 'সূর্য দীঘল বাড়ী' (১৯৭৯) তাঁর করা উল্লেখযোগ্য শিল্প নির্দেশনার কাজ। বিরাজ বৌ (১৯৯০) তাঁর নির্মিত একমাত্র চলচ্চিত্র । তিনি শিল্পনির্দেশক হিসেবে চার বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেছিলেন। শিল্পনির্দেশনা দেওয়া তাঁর সর্বশেষ ছবি ছিল গৌতম ঘোষ পরিচালিত যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘মনের মানুষ’। এই ছবির জন্যও তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন।

সারাবাংলা/এএসজি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন