বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপে ভারতের স্বপ্নভঙ্গের ম্যাচটা খেলতে চাননি শামি

April 18, 2020 | 12:41 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

২০১৫ সালের বিশ্বকাপে ভারতের স্বপ্নযাত্রা থেমে যায় সেমিফাইনালে। তার আগে দুর্দান্ত গতিতেই এগুচ্ছিল মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। ছয় ম্যাচ খেলে জিতেছিল ছয়টিতেই। দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা। পেস ডিপার্টমেন্টে আগুন ছড়াচ্ছিলেন দুই পেসার উমেশ যাদব ও মোহাম্মদ শামি। কিন্তু সেমিতে অস্ট্রেলিয়াকে কাবু করতে পারেনি ভারতীয়রা।

বিজ্ঞাপন

স্টিভেন স্মিথের সেঞ্চুরিতে ৩২৮ রান তোলে প্রথমে ব্যাটিং করা অস্ট্রেলিয়া। পরে ভারত ২৩৩ রানে গুটিয়ে গিয়ে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়ে। এতদিন পর এসে সেই স্বপ্নভঙ্গের বর্ণনা দিতে গিয়ে মোহাম্মদ শামি বলেছেন, ম্যাচটাতে খেলতে চাননি তিনি!

২০১৫ বিশ্বকাপে ভারতীয় পেসার ছিলেন আগুনে ফর্মে। প্রথম ছয় ম্যাচে ১৭ উইকেট নেন শামি। কিন্তু শরীর তার পক্ষে ছিল না। পুরো বিশ্বকাপ খেলেছেন হাঁটুর চোট নিয়ে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেমিফাইনালে চোট এতটাই বেড়ে যায় যে খেলতে চাননি তিনি। টিম ম্যানেজমেন্টের চাওয়াতে পরে খেলতে হয়েছে। তবে সুবিধা করতে পারেননি। ১০ ওভারে ৬৮ রান খরচ করে উইকেট পাননি একটিও। সেই যন্ত্রণাটা এখনো পোড়ায় তাকে।

বিজ্ঞাপন

ভারতীয় পেসার বলেন, ‘পুরো বিশ্বকাপ (২০১৫) জুড়েই আমার হাঁটুতে চোট ছিল। ম্যাচের পর আমি হাঁটতেও পারতাম না। প্রথম ম্যাচেই হাঁটু ভাঙে আমার। হাঁটু ফুলে প্রায় উরুর মতো হয়ে যায়। প্রতিদিনই হাঁটু থেকে পানি বের করতে হতো। তিনটা করে ব্যথানাশক ওষুধ খেতে হত।’

শামি আরো বলেন, ‘সেমিফাইনালের আগে আমি সবাইকে বলেছিলাম, আর পারছি না। ম্যাচের দিন অনেক ব্যথা ছিল তবে টিম ম্যানেজমেন্ট বলে ঠিক হয়ে যাবে। ম্যাচটা সেমিফাইনাল তাই নতুন কাউকে নেওয়া যাবে না বলেছে তারা। মাহি ভাই (ধোনি) আমাকে অনেক আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছেন।’

হাঁটুর অমন অবস্থা নিয়েও সেদিন প্রথম স্পেলটা অবশ্য দুর্দান্তই করেছিলেন শামি। প্রথম স্পেলে পাঁচ ওভার বোলিং করে খরচ করেন মাত্র ১৩ রান। অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার ঠিকভাবে খেলতে পারেনি ভারতীয় পেসারকে। কিন্তু পরে এসে সেই গতিটা আর ধরে রাখতে পারেননি।

সারাবাংলা/এসএইচএস/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন