বিজ্ঞাপন

করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম চালান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-ফ্রান্স দ্বন্দ্ব

May 14, 2020 | 8:01 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি হলে প্রথম চালান যুক্তরাষ্ট্রে পাঠাতে চায় ফ্রান্সের বিখ্যাত ওষুধ প্রস্ততকারক প্রতিষ্ঠান সানোফি। তবে ফ্রান্স সরকার সানোফির এমন পরিকল্পনার কঠোর সমালোচনা করেছে। ফ্রান্সের এক মন্ত্রী বলেছেন, ভ্যাকসিনের প্রথম চালানটি যুক্তরাষ্ট্রে গেলে তা হবে পুরোপুরি 'অগ্রহণযোগ্য'।

বিজ্ঞাপন

এর আগে সানোফির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পল হডসন বলেছিলেন, ভ্যাকসিন তৈরি করা গেলে এর প্রথম চালানটি যাবে যুক্তরাষ্ট্রে, কেননা যুক্তরাষ্ট্র এতে প্রথমে বিনিয়োগ করেছে।

তবে ফ্রান্সের উপ-অর্থমন্ত্রী অ্যাগনেস প্যানিয়ার-রুনাচার এই মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে বলেছেন, বাণিজ্যিক কারণে অন্য একটি দেশকে অধিক সুবিধা দেওয়ার এমন নীতি আমাদের পক্ষে মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া ফ্রান্সের শিক্ষামন্ত্রী ফেডরিকে ভিদালও সানোফির প্রধান নির্বাহীর মন্তব্যে কঠোর প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। তিনি এমন সিদ্ধান্তকে, 'অবজ্ঞাপূর্ণ' বলে মন্তব্য করেছেন।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের জন্য গবেষণা করছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। ফ্রান্সের ফার্মাসিউটিক্যালস জায়ান্ট কোম্পানি সানোফিও ভ্যাকসিন তৈরির দৌড়ে রয়েছে। যুক্তরাজ্যের ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইনের সঙ্গে মিলে করোনাভাইরাসের একটি ভ্যাকসিন তৈরি কাজ করছে সানোফি। তবে ভ্যাকসিনটি এখনও প্রাথমিক গবেষণা পর্যায়ে রয়েছে। এ ভ্যাকসিন তৈরি করতে সানোফিতে বড় অংকের অর্থ সাহায্য দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

বিজ্ঞাপন

ভ্যাকসিন তৈরি কাজে শুরুতে বড় অংকের বিনিয়োগ করায় সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটির যুক্তরাষ্ট্রই প্রথম দাবীদার বলে জানিয়েছেন দেশটির বিশেষজ্ঞরা। এমন দাবীতে সানোফির প্রধান নির্বাহীও একমত হয়েছেন। তবে ফ্রান্সের উপ-অর্থমন্ত্রী অ্যাগনেস প্যানিয়ার-রুনাচার জানিয়েছেন, গত এক বছরে সানোফিতে ১০ মিলিয়ন ইউরোর বেশি বিনিয়োগ করেছে তার দেশ।

গত বছরের ডিসেম্বর থেকে চীনের উহান থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়া নভেল করোনাভাইরাসে সারাবিশ্বে এ পর্যন্ত প্রায় ৩ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৪ লাখ ৬৫ হাজারের বেশি। ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্র করোনাভাইরাসে অন্যতম ভুক্তভোগী দু'টি দেশ। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত ৮৫ হাজারের বেশি মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ফ্রান্সে মারা গেছেন ২৭ হাজারের বেশি।

বিজ্ঞাপন

এ ভাইরাসের এখনও কোন ভ্যাকসিন তৈরি হয়নি। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তত্ত্বাবধানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রায় ৭০টি ভ্যাকসিন তৈরি জন্য গবেষণা চলছে। এর মধ্যে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষকের তৈরি একটি ভ্যাকসিন মানব দেহে প্রয়োগ করে ট্রায়ালে রয়েছে।

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন