বিজ্ঞাপন

ঘরে আসবে ‘সিনেমা হল’

May 16, 2020 | 6:35 pm

আহমেদ জামান শিমুল

দেশে একের পর এক সিনেমা হল বন্ধ হয়ে গেছে। কমতে কমতে সে সংখ্যা ২০০ তে এসে থেমে ছিলো। কিন্তু করোনাভাইরাস তাতে শেষ পেরেকটা ঠুকে দিয়েছে। চলচ্চিত্র প্রযোজকরা তাহলে যাবেন কোথায়?

বিজ্ঞাপন

প্রযুক্তির কল্যাণে মানুষ এখন সিনেমা ঘরে বসেই দেখতে পারছে। নেটফ্লিক্স, আমাজন, জিফাইভ, হইচই-এর মত বিদেশি সাইটগুলো তো বাংলাদেশে অনেক জনপ্রিয়। কিন্তু এসব সাইটে বাংলাদেশি সিনেমা কালে ভদ্রে একটা দুটা দেখা যায়। উচ্চ সাবস্ক্রিপশন মূল্যের কারণে সাধারণ দর্শকদের পক্ষে সবসময় এসব সাইটে ঢুকা সম্ভব হয় না।

এসকল সমস্যার সমাধান হিসেবে ই-সিনেমা নামে একটি সমাধান আনছে বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান শর্টেস গ্রুপ। তাদের দাবি, সিনেমা হল আসবে ঘরে। কিন্তু এখনকার ভিডিও স্ট্রিমিং সাইটগুলোতো ঘরে বসে ছবি দেখার সুযোগ দিচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

কেনো এমন দাবি? উদ্যোক্ততাদের একজন সঞ্জয় বড়ুয়া উত্তর দেন এ বিষয়ে। তিনি বলেন, ‘আমাদের এখানে একটি ছবি সাধারণ হলের মত একই সময়ে মুক্তি পাবে। সাধারণ সিনেমা হলে যেভাবে মানুষ নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দিয়ে একটি শো-য়ে ছবি দেখে এখানেও সেভাবে দেখবে। আমাদের কতগুলো স্লট থাকবে। যেখানে ছবি সিনেমা হলের মতো লাইভ চলবে। টিকেটের দাম শুরু হবে ১০ টাকা থেকে।’

ই-সিনেমায় তিন ধরণের চলচ্চিত্র দেখতে পারবে দর্শক। ২০ মিনিট, ৯০ মিনিট ও নিয়মিত দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র। এখানে অন্যান্য ভিডিও স্ট্রিমিং সাইটের মত আলাদা কনটেন্ট থাকবে। যেগুলো মাসিক, ত্রৈমাসিক ও ষন্মাসিক সাবস্ক্রিপশনের মাধ্যমে দেখতে পারবে দর্শক। নিয়মিত শোয়ে ছবিগুলো সাবস্ক্রাইবাররা এমনিতেই দেখতে পাবেন।

এ ধরনের ভিডিও প্ল্যাটফর্মে তো পাইরেসি একটা বড় সমস্যা। স্ক্রিণ রেকর্ডারের মাধ্যমে যে কেউ পাইরেসি করতে পারে। এটা কীভাবে ঠেকাবেন?

সঞ্জয় বড়ুয়া বলেন, ‘আমাদের মোবাইল অ্যাপ যখন কেউ নামাবে সেখানে স্ক্রিণ রেকর্ডার অপশন লক করা থাকবে। একই সাথে ওয়েব সাইটেও যাতে এরকম কিছু করতে না পারে তা নিয়েও কাজ করছি আমরা।’

শুধু সিনেমা দেখা নয় এর খবরাখবর, আইএমডিবি’র মত রেটিং ও রিভিউয়ের ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া ক্রাউড ফান্ডিংয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র নির্মাণের অর্থ যোগাড়ের ব্যবস্থাও রাখা হবে। জানালেন সঞ্জয়।

সঞ্জয় জানালেন তারা ২০১৬ সাল থেকে ই-সিনেমা হল নিয়ে কাজ করছেন। ইচ্ছে ছিলো এ বছরের কোরবানির ঈদে চালু করার। তবে এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার জন্য অপেক্ষা করছেন তারা।

সারাবাংলা/এজেডএস/

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন