বিজ্ঞাপন

‘আম্ফান’ এর আপাত লক্ষ্য উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গ উপকূল

May 17, 2020 | 12:23 am

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ভারতের তামিলনাড়ু উপকূল থেকে কিছুটা দূরে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপটি ক্রমশ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে চলেছে। উপগ্রহ থেকে প্রাপ্ত স্থিরচিত্র বিশ্লেষণ করে ধারণা করা হচ্ছে, এটি ভারতের ওড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গের স্থলভাগ লক্ষ্য করে এগিয়ে যাচ্ছে। তবে আগামী ২০ থেকে ২২ মে পর্যন্ত এর প্রভাব দেখা যাবে বাংলাদেশেও।

বিজ্ঞাপন

নিম্নচাপটি যদি ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয় তবে এর নাম হবে 'আম্ফান'। এটিই হতে যাচ্ছে করোনাকালের প্রথম একটি ঘূর্ণিঝড়। ঘূর্ণিঝড়টি এই দশকেরও প্রথম প্রলয়।

সাইক্লোন ট্র্যাকার জানাচ্ছে, মে মাসের ২০ থেকে ২২ তারিখের মধ্যে এটি আঘাত হানতে পারে। এর আগে সমুদ্রে শক্তি সঞ্চয় করে এটি প্রবল অথবা মাঝারি হবে। এখন আপাতত বাতাসের বলয়কে বিস্তৃত করছে আম্ফান। এই বিস্তৃতি এখন থেকে ক্রমশ বাড়তেই থাকবে।

বিজ্ঞাপন

ঢাকার আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, অনেকদিন থেকেই জিইয়ে থাকা গভীর নিম্নচাপটি সোমবার যেকোন সময় ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। এরপর থেকে এর কেন্দ্রে বাতাসের গতিবেগ বাড়তে থাকবে। বাতাসের গতিবেগ ছুঁতে পারে ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটারের স্কেল। এর কাছাকাছি শক্তি নিয়েই উপকূলে আঘাত হানবে এটি। এরপর কয়েকদিন বৃষ্টি ঝরিয়ে দুর্বল হয়ে যাবে আম্ফান।

শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নিম্নচাপটি উড়িষ্যা থেকে প্রায় এক হাজার কিলোমিটার এবং পশ্চিমবঙ্গের উপকূল থেকে ১ হাজার ৩০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল। বাংলাদেশ থেকে এর দূরত্ব এখনো দেড় হাজার কিলোমিটারের কাছাকাছি। এর প্রভাবে ভারতের তামিলনাড়ু উপকূলে সমুদ্র এখন কিছুটা উত্তাল রয়েছে।

অতীতের ঘূর্ণিঝড়গুলো বিশ্লেষণ করে বলা যায়, আম্ফানের দেশের সমুদ্র উপকূলে প্রবল জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। এর প্রভাব পড়তে পারে সারাদেশে। গত বছরের দুই ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ ও ‘বুলবুল’ এর সময়ও এমনটা লক্ষ্য করা গেছে।

গত বছরের নভেম্বর মাসে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মূলত ভারতের উড়িষ্যায় আঘাত হেনেছিল। তবে পশ্চিমবঙ্গ ও দেশের খুলনা-সাতক্ষীরা অঞ্চলে এর প্রভাব ছিল ব্যাপক। এজন্য ভারত ইতোমধ্যেই তাদের সমুদ্রজীবী জেলেদের পানিতে নৌকা ভাসাতে নিষেধ করে দিয়েছে। এছাড়ও উপকূলীয় অঞ্চলে সরকারী নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত প্রাক ঘূর্ণিঝড়ের পরিস্থিতিতে রয়েছে আম্ফান। তবে এটি যেভাবে শক্তি সঞ্চয় করছে, তাতে  রোববার রাতের মধ্যেই এটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হতে পারে। এর প্রভাবে আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে ইতিমধ্যেই বৃষ্টি শুরু হয়ে গেছে।

ভারতীয় আবহওয়াবিদদের মতে, আম্ফানের প্রভাবে আন্দামান দ্বীপে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বর্ষা প্রবেশ করতে পারে। যদিও বর্ষা ঋতুর আরও একমাস বাকী। এমনিতে ভারতের মূল ভূখণ্ডে বর্ষা ঢুকবে নির্ধারিত সময়েরও চারদিন পর। বাংলাদেশ-ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সবার প্রথমে ভারতের কেরালা রাজ্যে ঢুকবে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু। কেরালায় এবছর বর্ষা ঢুকার সময় ১ জুন ধারণা করা হচ্ছে।

সারাবাংলা/টিএস/আইই

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন