বিজ্ঞাপন

‘দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব মুমিনুলের কাঁধে’

May 17, 2020 | 12:45 am

স্পোর্টস ডেস্ক

সাকিব আল হাসানের নিষেধাজ্ঞার পর বাংলাদেশের টেস্ট দলের অধিনায়কত্বের ভার তুলে দেওয়া হয় মুমিনুল হকের কাঁধে। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত দুই ফরম্যাটে নিয়মিত হতে না পারলেও টেস্টে দেশের হয়ে ব্যাট হাতে লড়াইটা করেছেন বেশ। আর তাই তো মুমিনুলের কাঁধেই ভরসা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের। শনিবার (১৬ মে) তামিম ইকবালের সঙ্গে লাইভ আড্ডায় এসেছিলেন মুমিনুল হক, সৌম্য সরকার এবং লিটন দাস। সেখানেই তামিম ইকবাল জানান দিলেন দেশের ক্রিকেটের সব থেকে বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব মুমিনুলের কাঁধেই।

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসের কারণে ঘরবন্দি মানুষের একঘেয়েমি দূর করার উদ্দেশ্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে নিয়মিত লাইভ আড্ডার আয়োজন তামিম ইকবালের। সেই অনুষ্ঠানেই শনিবার অতিথি হয়ে আসেন বাংলাদেশের টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক। কথায় কথায় উঠে আসে টেস্ট দলের প্রসঙ্গ। আর তখনই তামিম জানান দেন দেশের ক্রিকেটের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব মুমিনুলের কাঁধে।

‘দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব মুমিনুলের কাঁধে’

বিজ্ঞাপন

তামিম বলেন, 'বাংলাদেশের ক্রিকেটের সব থেকে বড় দায়িত্ব মুমিনুল তোর কাঁধে। ক্রিকেটের সব থেকে বড় খেলা টেস্ট। সব থেকে বেশি সম্মানের বিষয় টেস্টে খেলা আর সব থেকে বেশি সম্মানের টেস্টের অধিনায়কত্ব করা। আমার মনে হয় তুই তোর লিডারশিপ দিয়ে আমাদের দেশকে অনেক ভালো কিছু এনে দিতে পারবি। আমার মনে হয় টেস্টের জন্যই তুইই সেরা অধিনায়ক আমাদের জন্য।

তবে সাকিবের নিষেধাজ্ঞা এবং সেই সঙ্গে টেস্টে বাংলাদেশের সমসাময়িক ফলাফল খুব বেশি সুখকর নয়। তবে কেন এমন এক ক্রান্তিকালে টেস্টের অধিনায়কত্ব নিজের কাঁধে নেওয়া? মুমিনুলকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন তামিম।

বিজ্ঞাপন

জবাবে মুমিনুল বলেন, 'আমি যখনই অধিনায়কত্বের প্রস্তাব পাই তখনই আমার মনে হয়েছিল অধিনায়কত্ব করার এটাই সব থেকে ভালো সময়। আমার দলে চার-পাঁচটা সিনিয়র খেলোয়াড় আছে। যারা ১০ বছর ধরে ক্রিকেট খেলছে সেই সঙ্গে আরও তিন-চারজন জুনিয়র আছে যারা দুর্দান্ত খেলোয়াড়। ভালো কিছু স্পিনার আছে সেই সঙ্গে ভালো কিছু পেসারও আছে। সবকিছু মিলিয়ে আমার মনে হয়েছে এটাই সেরা সময় অধিনায়কত্বের দায়িত্ব নেওয়ার।'

টেস্টে বাংলাদেশের সিনিয়র ক্রিকেটার বলতে মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল এবং মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ তাদের অনুপ্রেরণাই মুমিনুলের অধিনায়কত্বের যত সাহস যোগায়। টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ক বলেন, 'আসলে ভাই (তামিম ইকবাল) আপনারা যারা  সিনিয়র আছেন তারাই আমাকে বেশি অনুপ্রেরণা দেন। আপনারা সিনিয়ররা আরো কমপক্ষে পাঁচ-ছয় বছর খেলবেন। সব কিছু মিলিয়ে আমার চিন্তা ভাবনা যে এই সময়টাতে আমি দেশের টেস্ট ক্রিকেটটাকে আরও এগিয়ে নিতে পারব।'

বিজ্ঞাপন

২০১৯ সালের ২৯ অক্টোবর সাকিবের নিষেধাজ্ঞার পর পরই বাংলাদেশ টেস্ট দলের নতুন অধিনায়ক হিসেবে মুমিনুল হকের নাম ঘোষণা করেন বিসিবি’র ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান। এরপর থেকে ভারত-পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান মিলিয়ে মোট চারটি টেস্টে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন মুমিনুল। অধিনায়ক হিসেবে মুমিনুলের টেস্ট যাত্রা খুব বেশি সুখকর হয়নি। ভারতের বিপক্ষে দুই টেস্টে ইনিংসসহ হার, পাকিস্তানের বিপক্ষে এক টেস্টে ইনিংসসহ হার। তবে ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ইনিংস এবং ১০৬ রানের ব্যবধানের জয় কিছুটা সস্তি এনে দিয়েছে টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ককে।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন