বিজ্ঞাপন

শিশুকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামি মারা গেল ‘বন্দুকযুদ্ধে’

May 22, 2020 | 9:57 am

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

গাজীপুর: শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলার এক আসামি গাজীপুরের টঙ্গীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মারা গেছেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে তিন রাউন্ড গুলি ও একটি বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২১ মে) দিবাগত মধ্যরাতে টঙ্গীর মধুমিতা রেললাইন এলাকায় এই ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনা ঘটে। নিহত আবু সুফিয়ান ফরিদপুরের মুনসুরাবাদ এলাকার সাইফুল ইসলামের ছেলে। তিনি মধুমিতা এলাকার দরবার শরীফে বসবাস করতেন।

র‌্যাব জানায়, গেল সপ্তাহে টঙ্গী মধুমিতা রেলগেট এলাকার একটি ময়লার স্তূপ থেকে প্রথম শ্রেণির এক মাদরাসা ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তাকে ধর্ষণের পর গলা টিপে হত্যা করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় মো. নিলয় নামে এক কিশোরকে গত ১৭ মে টঙ্গী রেল স্টেশন এলাকা থেকে গ্রেফতর করে র‌্যাব। পরে তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী র‌্যাব-১ সদস্যরা বৃহস্পতিবার দিবারাত ১২টার দিকে মধুমিতা রেল লাইন এলাকায় অভিযান চালায়।

বিজ্ঞাপন

র‌্যাব জানিয়েছে, র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আবু সুফিয়ান ও তার সঙ্গে থাকা লোকজন র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি করে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি করলে আবু সুফিয়ান মারা যান। এসময় আতোয়ার ও সেলিম নামে র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

এর আগে, গত ১৫ মে বিকেলে ওই মাদরাসা ছাত্রী মধুমিতা রেললাইন এলাকায় মাঠে খেলতে এলে আবু সুফিয়ান ও নিলয় তাকে দেখতে পায়। পরে বৃষ্টি নামলে ওই ছাত্রী বাসায় ফিরে যেতে থাকে। এসময় বৃষ্টির কারণে লোকসমাগম কম ছিল। আবু ‍সুফিয়ান ও নিলয় মিলে মেয়েটিকে চকলেট কিনে দেওয়ার নাম করে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়। পরে মেয়েটির গলা টিপে ধরে এবং দুই পাশে আঘাত করে তাকে হত্যা করা হয়।

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন