বিজ্ঞাপন

জামাল ভূঁইয়ার তিন সতীর্থ এখন ইউরোপের ফুটবল মাতাচ্ছেন!

May 23, 2020 | 4:46 pm

জাহিদ-ই-হাসান, স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

বিজ্ঞাপন

ঢাকা: বাংলাদেশ ফুটবলের পোস্টার বয় জামাল ভূঁইয়াকে নিয়ে অনেক কথাই চাউর সমর্থকদের মুখে। অনেকেই ভাবেন এই দেশে না আসলে কোথায় থাকতেন বাংলাদেশি এই বংশোদ্ভূত ফুটবলার। চার বুলেটের আঘাতের পরেও ঘুরে দাঁড়িয়ে ‍ফুটবলে ফিরে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় ‍মুখে পরিণত হওয়া এই ফুটবলার কী ইউরোপের ‍ফুটবলে রাজ করতেন!

সেই প্রশ্নের ব্যাখ্যা দেয়া কঠিন। যেখানে ফুটবলটাই ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন ‘বুলেট কাহিনীর পর’ সেখানে দৃঢ় মানসিকতার পরিচয় দিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন। বাংলাদেশের ডাকে এসে এখন জাতীয় দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন অধিনায়ক হিসেবে। তবে জামাল ভূঁইয়া জানালেন বিস্ফোরক এক তথ্য।

বিজ্ঞাপন

তা হলো- জামাল ভূঁইয়া ছোটবেলায় ডেনমার্কের যে ইয়ুথ একাডেমিতে খেলতেন, সেই দলের তার তিন বন্ধু এখন ইউরোপের শীর্ষ তিন লিগে খেলছেন। ভ্যালেন্সিয়া-বুরুশিয়া ডর্টমুন্ডের মতো দলে নিয়মিত খেলে যাচ্ছেন জামালের বন্ধু-সতীর্থ ফুটবলাররা।

ডেনমার্কের এফসি কোপেনহেগেনের ইয়ুথ একাডেমিতে বহুবছর খেলেছেন জামাল ভূঁইয়া। সেই একাডেমিতে তার তিন বন্ধু স্প্যানিশ লিগের অন্যতম জায়ান্ট দল ভ্যালেন্সিয়ার মিডফিল্ডার ড্যানিয়েল ভাস, জার্মান লিগের জায়ান্ট বুরুশিয়া ডর্টমুন্ডের মিডফিল্ডার থমাস ডিলেইনি ও ইংল্যান্ডের এফএ কাপের পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ব্রুমের স্ট্রাইকার কেনিথ জোহারে।

এই তিনজনের সঙ্গে একাডেমিতে খেলার গল্প শুনিয়েছেন জামাল ভূঁইয়া। শুক্রবার বাফুফের ফেসবুক লাইভ আড্ডায় পোস্টারবয় সেই স্মৃতি টেনে আনলেন, ‘ড্যানিয়েল ভাস আর আমি একদম ছোটবেলা থেকেই একসঙ্গে ছিলাম। একই জায়গায় থাকতাম, এক স্কুল, কলেজে পড়েছি। একই ক্লাবে খেলেছি। থমাস ডিলাইনির সঙ্গে কোপেনহেগেনে ৫ বছর একসঙ্গে খেলেছি। আরেকজন আছে কেনিথ জোহারে, ও এখন ওয়েস্টব্রমে খেলে। এই কয়জন আমার বেশ কাছের।’

জামালের ঘনিষ্ঠ এই বন্ধুরা এখন ডেনমার্কের জাতীয় দলেও খেলছেন।

একটু পরিচিতি দেয়া ভাল। ড্যানিয়েল ভাস ডেনমার্ক জাতীয় ফুটবল দলের মিডফিল্ডার এখন। ভাস লা লিগার ক্লাব সেল্টা ভিগো খেলে এখন ভ্যালেন্সিয়াতে খেলছেন এই মিডফিল্ডার। সেল্টার হয়ে দুই গোল আর ভ্যালেন্সিয়ার হয়ে তিন গোল করেছেন এই ড্যানিস ফুটবলার।

এদিকে জামার্ন লিগে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছেন জামালের আরেক বন্ধু থমাস ডিলেইনি। তিনিও ডেনমার্ক জাতীয় ফুটবল দলের মিডফিল্ডার এখন। জাতীয় দলের হয়ে ৪৩ ম্যাচে পাঁচ গোল আছে নামের পাশে। বুরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে ২০১৮ সালে নাম লিখিয়ে এখনও পর্যন্ত ৩৭ ম্যাচে তিন গোল তার নামের পাশে।

আর আরেক বন্ধু কেনিথ জোহারে ইংল্যান্ডের সেকেন্ড টায়ারের দল ওয়েস্ট ব্রুমের হয়ে খেলছেন। দলটি ইংলিশ চ্যাম্পিয়নশিপ ও এফএ কাপ খেলে থাকে। পাঁচ বারের এফএ কাপ উইনার ওয়েস্টব্রোমে স্ট্রাইকিং পজিশনে খেলছেন কেনিথ। তাছাড়া ডেনমার্কেব বয়সভিত্তিক প্রত্যেকটি দলে খেলেছেন এই ডেনিস ফুটবলার।

জীবনে এমন বুলেট ট্র্যাজেডি না থাকলে হয়তো জামালের জীবনটাও এমন জায়গায় যেতে পারতো। তবে এই দুর্ঘটনার পরেও কোমা থেকে উঠে দাঁড়িয়ে ফুটবলে ফিরে নিজের জায়গা তৈরি করেছেন জামাল সেটাও বা রূপকথার থেকে কম কিসে!

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন