বিজ্ঞাপন

সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না, অফিস চলবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে

May 27, 2020 | 5:35 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকারঘোষিত সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না। আগে দফায় দফায় বাড়ানো সাধারণ ছুটির মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩০ মে। এই সময় থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি-আধাশাসিত-স্বায়ত্তশাসিত অফিস সীমিত পরিসরে চালু রাখা যাবে বলে সারাবাংলাকে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৭ মে) বিকেলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী এ সব তথ্য সারাবাংলাকে জানান।

প্রতিমন্ত্রী জানান,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছুটি না বাড়ানো সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে অনুমোদন দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

বিজ্ঞাপন

সীমিত পরিসরে অফিস চালু থাকলে অফিসে বয়স্ক, গর্ভবতী নারীরা আসতে পারবে না বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি আরও জানান, অফিস চললেও ১৫ জুন পর্যন্ত সব ধরনের গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। স্কুল-কলেজও বন্ধ থাকবে। তবে শিক্ষার্থীদের জন্য দুরশিক্ষণ কার্যক্রম আগের মতো অব্যাহত থাকবে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, করোনাভাইরাসের কারণে সব ধরনের সভা-সমাবেশ, ধর্মীয় জমায়েত আগের মতো বন্ধ থাকবে। হাট-বাজার-দোকানপাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনাকাটা চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

মসজিদ-মন্দিরে আগের মতো স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রার্থনা চলবে বলে যোগ করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, আমরা লকডাউন একেবারে উঠিয়ে নিচ্ছি না। ধীরে ধীরে সবকিছু চালু হবে।  এ সময়ে রেল পরিবহন চলবে না। তবে বেসরকারি বিমান প্রতিষ্ঠানগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিমান চালু করতে পারবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বাংলাদেশে ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি চলছে। সাত দফা বাড়ানো এই ছুটি শেষ হচ্ছে ৩০ মে। ছুটি চলাকালীন গণপরিবহন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সব ধরনের অফিস বন্ধ রয়েছে। তবে ভার্চুয়ালভাবে আদালত চালু করা হয় সীমিত পরিসরে। ছুটির মধ্যে জরুরি সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠানসহ সীমিতভাবে ব্যাংক ও কিছু অফিস খোলা ছিল।

পরবর্তী সময়ে কিছু সরকারি দফতর ও গার্মেন্ট প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশে লকডাউন শিথিল করায় সংক্রমণ হার আগের চেয়ে বেড়েছে। গত কয়েকদিন ধরে প্রতিদিন গড়ে দেড় সহস্রাধিক রোগী শনাক্ত হচ্ছেন। যারা করোনাভাইরাস পজিটিভ। আগের চেয়ে মৃত্যু হারও বেড়েছে। প্রতিদিন মৃত্যুর সংখ্যা ২০ জন ছাড়িয়ে যাচ্ছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সর্বশেষ বুলেটিন অনুযায়ী বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩৮ হাজার ২৯২ জন। সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৫৪৪ জন। করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়েছেন প্রায় ৮ হাজার মানুষ।

আরও পড়ুন

ফায়ার সার্ভিসের ৭৯ কর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত
করোনাভাইরাস: আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়তে যাচ্ছে ডব্লিউএইচও
সুপ্রিম কোর্টের এক বিচারপতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত
করোনাভাইরাস: ১০ সপ্তাহ শেষেও সংক্রমণ-মৃত্যু বাড়ছেই
‘করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে স্বাস্থ্যবিধি প্রণয়ন’
করোনাভাইরাসের কারণে বিরাট ধাক্কা লেগেছে: প্রধানমন্ত্রী

 

 

 

সারাবাংলা/জেআর/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন