বিজ্ঞাপন

ফ্রান্সে করোনা চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন নিষিদ্ধ

May 27, 2020 | 9:37 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ফ্রান্সে করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন নিষিদ্ধ করেছে সেদেশের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ। বুধবার (২৭ মে) ফ্রান্সের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত এক আদেশ জারি করেছে। এতে ম্যালেরিয়ার এই ওষুধটি করোনাভাইরাস চিকিৎসায় ব্যবহার না করতে চিকিৎসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই দিন বেলজিয়াম ও ইতালির ওষুধ সংস্থা করোনা চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহার ঝুঁকিপূর্ণ বলে সতর্কতা জারি করেছে।

বিজ্ঞাপন

ফ্রান্সের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে জারি হওয়া ওই আদেশে বলা হয়, করোনাভাইরাসের চিকিৎসার জন্য হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন কোনো ব্যবস্থাপত্রে রাখা যাবে না। উল্লেখ্য, এর আগে গত মার্চে করোনা চিকিৎসায় ওষুধটি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছিলো ফ্রান্স। এর দুই মাসের মাথায় এবার ওষুধটি নিষিদ্ধ করা হলো।

এর আগে মঙ্গলবার ফ্রান্সের পবালিক হেলথ অ্যাজেন্সি ওষুধটি শুধু ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ছাড়া সাধারণভাবে করোনা চিকিৎসায় ব্যবহার না করার পরামর্শ দেয়। তবে এই পরামর্শের কয়েক ঘণ্টা পর একই দিন ফ্রান্সের ন্যাশনাল মেডিসিন রেগুলেটর হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের সকল ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল স্থগিত ঘোষণা করে। এর একদিন বাদে ফ্রান্সের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহার না করার নির্দেশ দিলো।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, করোনা চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহারের ক্ষেত্রে একই রকম সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে ইতালি ও বেলজিয়াম। বুধবার দুই দেশের ওষুধ সংস্থা করোনা চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের ব্যবহার ঝুঁকিপূর্ণ বলে সতর্ক করেছে।

এদিন বেলজিয়ামের ওষুধ সংস্থা নিবন্ধিত ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের বাইরে করোনা চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহারের বিরুদ্ধে সতর্কতা জারি করেছে। সংস্থাটি জানিয়েছে, ইতিমধ্যে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ওষুধটি ব্যবহার করা হয়েছে, সেখানেও ঝুঁকি রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ইতালির ওষুধ সংস্থা জানিয়েছে, করোনা চিকিৎসায় খুব সামান্য বা কোন সুবিধা ছাড়াই ওষুধটি ব্যবহারে বরং ঝুঁকির মাত্রা বেশি।

এর আগে সোমবার হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সাময়িক স্থগিত করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। ওই দিন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলতি ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল স্থগিতের ঘোষণা দেয় সংস্থাটি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান ড. টেড্রস অ্যাডহানম গেব্রেইয়েসুস এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

বিজ্ঞাপন

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে ড. টেড্রস অ্যাডহানম গেব্রেইয়েসুস বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্বাহী গ্রুপ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের যেসব ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে তাতে সাময়িক স্থগিতাদেশ দিয়েছে। নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক বোর্ড এসব ট্রায়ালের সকল নিরাপত্তা পরিসংখ্যান পর্যালোচনা করে এ সিদ্ধান্ত দিয়েছে।

গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যভিত্তিক প্রসিদ্ধ জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেট- এর এক গবেষণা প্রকাশ হওয়ার পর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এমন সিদ্ধান্ত নেয়। ওই গবেষণায় বলা হয়,  ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর শরীরের প্রয়োগ করার পর তাদের মৃত্যু ঝুঁকি আরও বাড়ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সিদ্ধান্তের  দুই দিন পর ফ্রান্স, ইতালি, বেলজিয়ামও করোনা চিকিৎসায় ওষুধটি নিষিদ্ধ করছে।

বিজ্ঞাপন

তবে এর আগে এ ওষুধটি করোনা চিকিৎসায় দৃশ্যপটে আসে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্রমাগত মন্তব্যের পর। বিশেষজ্ঞদের নিষেধ সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট শুরু থেকেই ওষুধটির পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। গত ১৯ মে হোয়াইট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে তিনি নিয়মিত হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন সেবন করছেন

তবে যুক্তরাষ্ট্রের এ ওষুধটি কোভিড-১৯ চিকিৎসায় কার্যকর বলে এখনও কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে শুরু থেকেই জানিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ)। এফডিএ বলছে, এ ওষুধটি সেবনে হৃদযন্ত্রে অনিয়মিত ক্রিয়া এমনকি হৃদযন্ত্রের ট্রমা পর্যন্ত ঘটার ঝুঁকি রয়েছে।

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন