বিজ্ঞাপন

দুর্নীতির লেশ রাখব না, কাউন্সিলরদের মেয়র তাপস

June 2, 2020 | 9:12 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) কোথাও কোনো ধরনের দুর্নীতি রাখবেন না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

বিজ্ঞাপন

কাউন্সিলরদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আজ থেকে করপোরেশনের দরজা আপনাদের জন্য খোলা। তবে করপোরেশনের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি রয়েছে। এই দুর্নীতিকে আমি প্রশ্রয় দেবো না। দুর্নীতির লেশমাত্র এই সংস্থায় রাখব না।’

মঙ্গলবার (২ জুন) দুপুরে ডিএসসিসি নগর ভবনের মেয়র মোহাম্মদ হানিফ মিলনায়তনে নবনির্বাচিত কাউন্সিলরদের নিয়ে অনুষ্ঠিত করপোরেশনের দ্বিতীয় পরিষদের প্রথম করপোরেশন সভায় তিনি এসব কথা বলেন। মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস সভায় সভাপতিত্ব করেন।

বিজ্ঞাপন

কাউন্সিলরদের ‘পথচলার প্রধান সঙ্গী’ অভিহিত করে মেয়র তাপস বলেন, আজ থেকে আমাদের নবযাত্রা শুরু হলো। শুরু হলো নব সূচনা। ঢাকাবাসীর কল্যাণে দেওয়া ওয়াদা পূরণের লক্ষ্যে আমরা কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করছি। ইনশাল্লাহ আমাদের কার্যক্রমের মাধ্যমেই ঢাকাবাসী এর প্রতিফলন দেখতে পাবেন।’

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, এখন থেকে করপোরেশনের সব কাজে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করা হবে। ঢাকাবাসীর কল্যাণে যা কিছু করা হবে, যেসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, তা আপনাদের (কাউন্সিলর) নিয়েই করা হবে। আজ থেকে করপোরেশনের দরজা আপনাদের জন্য খোলা। আপনারা সরসরি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন।

বোর্ড সভায় ডিএসিসির ৪২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. সেলিমকে সভাপতি করে ৯ সদস্যের অর্থ ও সংস্থাপন বিষয়ক স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে ৬ জন ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং ৩ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর থাকবেন। এ কমিটিকে নির্দিষ্ট দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি বা দায়িত্ব পালনে গাফিলতি বিষয়ক অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ দিতে অনুরোধ করেন মেয়র। কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও সংশ্লিষ্টদের হুঁশিয়ার করে দেন তিনি।

মেয়র শেখ তাপস ঢাকাবাসীর সুযোগ সুবিধা বাড়াতে যৌক্তিকভাবে নতুন নতুন আয়ের খাত সৃজনের ঘোষণা দেন। তবে নাগরিকদের ওপর বাড়তি করের বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হবে না বলেও জানান।

সভার শুরুতে মেয়র শেখ তাপস জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় ৪ নেতা, পিতা শেখ ফজলুল হক মনি ও মা আরজু মনিসহ ১৫ আগস্টের সব শহিদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। তাদের শ্রদ্ধা জানাতে এক মিনিট নীরবতাও পালন করা হয়।

পরে মেয়র মশক নিয়ন্ত্রণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, যানজট, জলাবদ্ধতা নিরসন, রাস্তাঘাট উন্নয়ন ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদসহ স্থান দখলমুক্ত করার বিষয়ে কাউন্সিলরদের সক্রিয় সহায়তা কামনা করেন।

সভায় মেয়র জানান, এখন থেকে প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহে বোর্ড মিটিং অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া কাউন্সিলররা সপ্তাহে একদিন বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে তার সঙ্গে আলাপ করতে পারবেন।

সারাবাংলা/এসএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন