বিজ্ঞাপন

পিহুর স্কুলের প্রথম দিন

June 2, 2020 | 11:44 pm

নাইস নূর

ব্যাগ কাঁধে নিয়ে স্কুলে যাওয়ার ভান করছে পিহু অনেকদিন ধরে। দুই দিন পর সত্যি সত্যি পিহু স্কুলে যাবে। তাই সে অনেক খুশি।

বিজ্ঞাপন

স্কুলে ভর্তির জন্য মৌখিক পরীক্ষা দিয়েছিলো পিহু। সেই দিনটা ছিল তার জন্য বিশেষ একটি দিন। রবিবার ছিল। সকালে মা-বাবার সঙ্গে স্কুলে যায় সে।

স্কুলের প্রিন্সিপাল ম্যাম পিহুকে অনেক প্রশ্ন করেছিলো।

বিজ্ঞাপন

ম্যাম প্রথম প্রশ্ন করেছিল, তোমার নাম কি?

উত্তরে সে বলেছিল, পিহু।

বিজ্ঞাপন

এরপর ম্যাম এক এক করে অনেক প্রশ্ন করে পিহুকে।

বলতো, আমাদের দেশের পুরো নাম কি?

বিজ্ঞাপন

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের রাজধানীর নাম কি?

বিজ্ঞাপন

ঢাকা।

বাংলাদেশের জাতীয় ফুল কি?

শাপলা।

বাংলাদেশের জাতীয় ফল কি?

কাঁঠাল।

বাংলাদেশের জাতীয় মাছ কি?

ইলিশ।

বাংলাদেশের জাতীয় পাখি কি?

দোয়েল।

বাংলাদেশের জাতীয় পশু কি?

রয়েল বেঙ্গল টাইগার।

এরপর ম্যাম প্রশ্ন করেছিল, তুমি টাইগার দেখেছ?

পিহু তখন বলেছিল, ম্যাম, আমি চিড়িয়াখানায় টাইগার দেখেছি। কিন্তু আমার সঙ্গে টাইগার কোন কথা বলে নি।

তোমার কি তখন মন খারাপ হয়েছিল?

হ্যাঁ।

পিহুর সব উত্তর শুনে খুব খুশি হয়েছিলো ম্যাম। কারণ সে সবগুলো প্রশ্নের উত্তর সঠিক বলতে পেরেছিলো।

আজ পিহুর স্কুলে প্রথম ক্লাস শুরু হবে। সব বই রাতে ব্যাগে গুছিয়ে রেখেছিলো সে। ক্লাসে গিয়ে পিহু তার বয়সী অনেক ছেলে মেয়ে দেখতে পেলো। সবার পোশাক একই রকম। এই পোশাককে স্কুল ইউনিফরম বলে। এটা পিহু তাঁর মায়ের কাছে থেকে জেনেছে। সবার একইরকম পোশাক দেখে খুশি হলো ভীষণ।

মনে মনে পিহু বললো, আজ বাসায় গিয়ে আমার সব পুতুলগুলোকে একই রঙের পোশাক পরিয়ে দেবো। তারপর তাদেরকে স্কুলে ভর্তি করিয়ে দেবো। আমি তাদের ম্যাম হবো। আমি স্কুলে যা শিখবো তাই তাদের শেখাবো। খুব মজা হবে।

একটু পর ক্লাসে একজন ম্যাম আসলো। ম্যাম দেখতে অনেক সুন্দর। অনেক মিষ্টি করে হাসেন। সবাইকে ‘গুড মর্নিং’ জানিয়ে ম্যাম বললেন, আমার নাম শিরিন আহমেদ। আমি তোমাদের ক্লাস টিচার। আচ্ছা বলতো, তোমরা কোন ক্লাসে পড়ো?

সবাই একসঙ্গে বলল, নার্সারী।

স্কুলের প্রথম দিন দারুণ উপভোগ করলো পিহু। বাসায় এসে মাকে সে বলল, 'মা, স্কুলে আমার অনেক বন্ধু হয়েছে।'

সারাবাংলা/এসবিডিই/আরএফ

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন