বিজ্ঞাপন

স্পর্শবিহীন অনুশীলনের উদ্যোগ বিসিবি’র

June 3, 2020 | 5:57 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

করোনাকালে নিজেদের সুরক্ষিত রেখে ক্রিকেটাররা কোন পদ্ধতিতে অনুশীলন করবেন এই মর্মে একটি গাইডলাইন ইতোমধ্যেই বোর্ডগুলোকে দিয়েছে আইসিসি। সেই মোতাবেক নিজেদের ক্রিকেটারদের অনুশীলনের পরিকল্পনা সাজাতে মেডিকেল বিভাগকে নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি। মেডিকেল বিভাগও তদনুযায়ী কাজ করছে। দেশে করোনার সংক্রমণ কমতে শুরু করলে বিসিবি নির্দেশনা মোতাবেক অনুশীলনে নামবেন ক্রিকেটাররা। আর সেটা হবে কোনো রকম সংস্পর্শ ছাড়াই।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।

দেবাশীষ জানান, 'অনুশীলনের জন্য ভিন্ন ভিন্ন মডিউল রয়েছে। শ্রীলঙ্কা শুধু বোলারদের জন্য পুরো আবাসিক অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছে। যেখানে ইংল্যান্ড ভিন্ন পন্থা ব্যবহার করছে। যদি একজন খেলোয়াড় একা অনুশীলন করতে চায়, তাহলে তাকে একটা নির্দিষ্ট সময় দেওয়া হবে মাঠে আসার জন্য কিংবা তাকে ইনডোর ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া হবে। এরপরের স্লটে অন্য কেউ অনুশীলন করবে। সুতরাং এখানে একে অপরের সংস্পর্শে আসার কোনো ব্যাপার থাকছে না।'

বিজ্ঞাপন

এদিকে অনুশীলনের সময় সাপোর্ট স্টাফদের সংখ্যা বেশি থাকা যাবে না বলেও জানান দেবশীষ। একটি সেশনে অনুশীলন করতে পারবেন কেবল সীমিত সংখ্যক ক্রিকেটার। আর অনুশীলনের প্রতিটি সেশন শেষে জায়গা ও সরঞ্জামগুলো সত্বর জীবাণুমুক্ত করা হবে। এই পুরো প্রক্রিয়াটি অনুসরণ করা হবে আইসিসি’র প্রোটোকল মেনে।

‘অনুশীলনের সময় আমরা সাপোর্ট স্টাফদের সংখ্যা কমিয়ে আনবো। একটি সেশনে কেবল অল্পসংখ্যক খেলোয়াড়দের অনুশীলনের অনুমতি দেওয়া হবে। আর কোনো সিরিজের আগে যদি অনুশীলন থাকে তাহলে খেলোয়াড়, অফিসিয়াল ও সাপোরর্টিং স্টাফদের একটি নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে আনা হবে যাতে করে ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি না থাকে।’

‘প্রতিটি সেশন শেষে সবগুলো জায়গা অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করা হবে। যখন অনুশীলন শুরু হবে আমরা আইসিসি’র প্রোটোকল মেনে চলব।’ যোগ করেন দেবাশীষ।

গেল ৩০ মে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি উঠে গেছে। এতে করে দেশও অনেকটা স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে ফিরে গেছে। কিন্তু স্বাভাবিক হয়নি কেবল করোনা পরিস্থিতি। এখনো আগের রুপেই রয়ে গেছে এবং যতই দিন যাচ্ছে ততই রুদ্ররুপ ধারণ করছে। উদ্ভুত পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে এখনই ক্রিকেট ফেরাতে পারছেনা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি। তবে ধীরে ধীরে ফেরানোর পরিকল্পনা তারা হাতে নিয়েছে। তার অংশ হিসেবে ক্রিকেটারদের নিরাপদ অনুশীলনে এমন পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে লাল সবুজের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ এই প্রশাসন।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন