বিজ্ঞাপন

মৃত্যুর আগে হাসপাতালে পিয়ানো বাজাচ্ছিলেন ওয়াজিদ

June 4, 2020 | 3:20 pm

এন্টারটেইনমেন্ট ডেস্ক

রবিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে মারা যান সংগীত পরিচালক সাজিদ-ওয়াজিদ জুটির ওয়াজিদ খান। তারা তবলাবাদক উস্তাদ সারফত আলী খানের ছেলে। দুই ভাই ‘তেরে নাম’, ‘ওয়ান্টেড’, ‘দাবাং’— বক্সঅফিস-কাঁপানো বহু ছবিতে সুর করেছিলেন। এ ছাড়া গায়ক হিসেবেও পরিচিতি ছিল ওয়াজিদের।

বিজ্ঞাপন

ওয়াজিদ খানের মৃত্যুর ২ দিন পর ভাই সাজিদ খান শেয়ার করলেন প্রয়াত সঙ্গীত পরিচালক ভাইয়ের ভিডিও । যেখানে দেখা যাচ্ছে, হাসপাতালের বেডে বসে পিয়ানো বাজাচ্ছেন ওয়াজিদ। মোবাইলের পিয়ানো অ্যাপ ডাউনলোড করে সেখানেই পিয়ানো বাজাচ্ছেন প্রয়াত সঙ্গীত পরিচালক ওয়াজিদ খান।

বিজ্ঞাপন

ভাইয়ের পিয়ানো বাজানোর ভিডিও শেয়ার করে সাজিদ খান লেখেন, ‘ওয়াজিদ সব সময় জীবন্ত থাকবেন। সঙ্গীত কখনও ওয়াজিদকে ছাড়বে না আবার ওয়াজিদও কখনও সঙ্গীতকে ছেড়ে থাকেনি।’ সাজিদ খান আরো উল্লেখ করেন, সাজিদের নামে এবং গানে ওয়াজিদ সব সময় জীবন্ত থাকবেন।

কিডনির সমস্যা-সহ একাধিক রোগে আক্রান্ত ছিলেন ওয়াজিদ খান। কয়েকদিন আগে মুম্বাইয়ের চেম্বুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরই জানা যায়, করোনায় আক্রান্ত ওয়াজিদ। এর ২ দিন পর হৃদযন্ত্র বিকল হয়েই শেষ পর্যন্ত মৃত্যু হয় ওয়াজিদ খানের। তবে কিডনির সমস্যা ও হৃদযন্ত্র বিকলের ফলে ওয়াজিদের মৃত্যু হয়েছে বলে বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে। আবার কারো কারো দাবি, কিডনি ও হৃদযন্ত্রে সমস্যা থাকলেও করোনা সংক্রমণের জেরেই মৃত্যু হয় ওয়াজিদ খানের।এদিকে মুম্বাই মিউনিসিপাল কর্পোরেশনের পক্ষ দেওয়া ডেথ সার্টিফিকেটেও করোনার উল্লেখ রয়েছে।

সারাবাংলা/এএসজি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন