বিজ্ঞাপন

৬ লাখ সুরক্ষা সরঞ্জাম দিলো আলিবাবা ও জ্যাক মা ফাউন্ডেশন

June 5, 2020 | 4:11 pm

সারাবাংলা ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ত্রাণ তহবিলে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ও চিকিৎসায় চীনের আলীবাবা ফাউন্ডেশন ও জ্যাক মা ফাউন্ডেশনের দেওয়া ৫০টি ভেন্টিলেটরসহ ডিটেকশন কিট, ইলেকট্রনিক লেজার থার্মোমিটার, মাস্ক, প্রটেকটিভ ক্লদিং, ফেস শিল্ড, গ্লাভসের মতো সাড়ে ছয় লাখেরও বেশি জরুরি স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম হস্তান্তর করেছে বিকাশ।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে তার কার্যালয়ে মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউসের কাছে বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীর এসব জরুরি স্বাস্থ্য সামগ্রী হস্তান্তর করেন। করোনার ক্রান্তিকালে এসব স্বাস্থ্যসামগ্রী জরুরি কাজে আসবে উল্লেখ করে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিকাশের চিফ এক্সটার্নাল অ্যান্ড কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার মেজর জেনারেল (অব.) শেখ মো. মনিরুল ইসলাম।

বিকাশের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশেষ এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং করোনা প্রতিরোধী কার্যক্রমকে আরও কার্যকর করতে বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠান আলীবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা-এর উদ্যোগে এবং বিকাশের ব্যবস্থাপনায় মানবিক সহায়তা হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ এসব স্বাস্থ্যসামগ্রী পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

৫০টি ভেন্টিলেটর ছাড়াও এই তালিকায় রয়েছে ২০ হাজার কোভিড-১৯ ডিটেকশন কিট, ৬০ হাজার কেএন-৯৫ মাস্ক, ৩ লাখ ফেস মাস্ক, ২ লাখ ইনস্পেকশন্স গ্লাভস, ১৫ হাজার ফেস শিল্ড, ১৫ হাজার প্রটেক্টিভ ক্লদিং, ৮০টি ইলেকট্রনিক লেজার থার্মোমিটার, ২০ হাজার নিউক্লিক এসিড আইসোলেশন এবং ২০ হাজার স্যাম্পল প্রিজারভেশন সল্যুশন।

দেশে কোভিড আক্রান্ত গুরুতর শ্বাসকষ্টে ভোগা রোগীদের চিকিৎসায় অতি জরুরি ভেন্টিলেটরের চাহিদার প্রেক্ষাপটে আলীবাবার দেওয়া এই ভেন্টিলেটরগুলো করোনা চিকিৎসাসেবাকে আরও ত্বরান্বিত ও কার্যকর করবে বলে আশাবাদ জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীর বলেন, আমরা আনন্দিত, বাংলাদেশের মানুষের জন্য আলীবাবা ফাউন্ডেশন ও জ্যাক মা ফাউন্ডেশন এসব স্বাস্থ্যসামগ্রী পাঠিয়েছে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে বিনিয়োগের মাধ্যমে অংশগ্রহণই কেবল নয়, এ দেশের মানুষের ভালো থাকা নিয়েও জ্যাক মা এবং তার প্রতিষ্ঠান দু’টি সচেতন। তাই জরুরি মুহূর্তে তারা এই সহায়তা পাঠিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

চীনা জায়ান্ট আলীবাবা গ্রুপের অ্যাফিলিয়েট অ্যান্ট ফিনান্সিয়াল দেশীয় প্রতিষ্ঠান বিকাশের মালিকানার অন্যতম অংশীদার। এছাড়া ব্র্যাক ব্যাংক, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মানি ইন মোশন, বিশ্বব্যাংক গ্রুপের অন্তর্গত ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশন এবং বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনও বিকাশের যৌথ মালিকানার অংশীদার। ২০১১ সাল থেকে বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়ন্ত্রিত পেমেন্ট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস দিয়ে আসছে বিকাশ।

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন