বিজ্ঞাপন

অপেক্ষা ফুরাচ্ছে মুশফিকদের

June 6, 2020 | 7:28 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

তিন মাস পেরিয়ে চার মাস হতে চলল মাঠে খেলা নেই। খেলা দূরে থাক করোনাভাইরাস নামক মহামারির প্রকোপে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা বাসা থেকেই বেরুতে পারছেন না। তাছাড়া দিনদিন দেশের করোনা পরিস্থিতি যে প্রকট আকার ধারণ করছে তাতে কবে ফিরতে পারবেন সেটা নিয়ে শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। কেননা দেশের করোনা পরিস্থিতির সিকিভাগ উন্নতিও নেই। এদিকে টানা লক ডাউনে ঘরে বসে থাকতে থাকতে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ফিটনেসের অবস্থাও যাচ্ছেতাই রকমের হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কেউ কেউ বাসায় ফিটনেস নিয়ে কাজ করলেও অনেকের আবার সেই সুযোগটিও নেই। তাছাড়া বাসার ফিটনেস আর আউটডোর ফিটনেস তো আর এক বিষয় নয়। সঙ্গত কারণেই করোনা সংকটের মধ্যেও মুশফিক-তামিমদের অনুশীলন নিয়ে ভাবতে হচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি)। সেই ভাবনা থেকেই মিরপুর শের-ই-বাংলায় টাইগারদের জন্য অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছে লাল সবুজের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ এই প্রশাসন।

সবকিছু ঠিক থাকলে আগামি এক সপ্তাহের মধ্যেই বিসিবি'র ব্যবস্থাপনায় মুশফিকরা ব্যক্তিগত অনুশীলন শুরু করতে পারবেন। পর্যায়ক্রমে তা দলগত অনুশীলনে রূপ নেবে।

বিজ্ঞাপন

গেল সপ্তাহে একক অনুশীলনের সুযোগ চাওয়া মুশফিককে অপেক্ষায় রেখেছে বিসিবি। অবশ্য শুধু মুশফিকই নন, জাতীয় দলের আরো অনেকেই এই সুবিধা চেয়েছিলেন। তবে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য সময় নিয়েছে বোর্ড।

সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন বিসিবি সিইও নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন।

তিনি বলেছেন, ‘সুযোগ-সুবিধার দিকগুলো প্রস্তুত না করে আমরা ওদের অনুশীলন করতে দিতে পারি না। মুশফিকসহ আরও চার-পাঁচজন ক্রিকেটারকে বিষয়টি বুঝিয়ে বলা হয়েছে। এখন আমরা সবকিছু প্রস্তুত করছি, করা হয়ে গেলেই ওরা কেউ চাইলে ব্যক্তিগতভাবে এসে অনুশীলন করে যেতে পারবে। আশা করি আগামি চার পাঁচ দিনের মধ্যেই আমরা সেই ব্যবস্থা করে দিতে পারব।’

এই ব্যবস্থা শুধু ঢাকাতেই নয়, ঢাকার বাইরে চট্টগ্রাম, সিলেট, খুলনা, রাজশাহী ও কক্সবাজার স্টেডিয়ামে ক্রিকেটাররা চাইলে ব্যক্তিগত অনুশীলনের সুযোগটি নিতে পারবেন।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন