বিজ্ঞাপন

সীমান্তে সেনা বাড়াল নেপাল, বহুমুখী চাপে ভারত

June 20, 2020 | 11:07 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের কেন্দ্রশাসিত লাদাখ সীমান্তে গালওয়ান উপত্যকায় চীনের সঙ্গে ভারতের সেনাদের সহিংস সংঘর্ষ ও প্রাণহানি নিয়ে এমনিতেই উত্তেজনা বিরাজ করছে ভারতের অভ্যন্তরীণ এবং বহিঃরাজনীতিতে।

বিজ্ঞাপন

তার ওপর, ভারতের সঙ্গে বিরোধপূর্ণ লিপুলেখ ও কালাপানি অঞ্চলে হঠাৎ সেনা তৎপরতা বাড়িয়েছে প্রতিবেশি নেপাল। চলছে সামরিক 'অস্থায়ী' অবকাঠামো নির্মাণ কাজ। এর মধ্য দিয়ে, দক্ষিণ এশিয়ার ক্ষমতাধর ভারত সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে বহুমুখী চাপের মধ্যে পড়লো - বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যমগুলো।

এদিকে, শনিবার (২০ জুন) ভারতের কয়েকটি গণমাধ্যম তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছেন, এমন পরিস্থিতি আগে কখনো দেখেননি তারা। শুধু সেনা বৃদ্ধিই নয়, একেবারে যুদ্ধকালীন তৎপরতার অংশ হিসেবে হেলিপ্যাড বানানোর কাজ করছে নেপাল।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় অধিবাসীদের কয়েকজন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, হঠাৎ করেই নেপালি সেনাদের তৎপরতা বেড়ে গেছে। এ সংক্রান্ত কয়েকটি ছবিও প্রকাশ করেছে ভারতের সংবাদমাধ্যম।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ঘন বনের ভিতরে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় ক্যাম্প বানানোর কাজ শুরু করেছে নেপাল। যদিও এই ছবিতে যে ক্যাম্পগুলো দেখা যাচ্ছে, সেগুলোকে 'অস্থায়ী' ক্যাম্প বলে দাবি করেছে ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো। তবে, এক একটা ক্যাম্পে অন্তত ১২ থেকে ১৩ জন করে নেপালি জওয়ান রয়েছেন বলে ধারণা করছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

পাশাপাশি, ইন্দো-নেপাল সীমান্তে ব্যাপকভাবে অবকাঠামো নির্মাণ শুরু করেছে নেপাল। অবকাঠামোগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ সেনা ঘাঁটি, প্রশস্ত রাস্তা। এছাড়াও, অবকাঠামো নির্মাণ কাজ চলছে চীন-নেপাল সীমান্তেও - বলে স্থানীয় সূত্রগুলো গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে।

ভারত থেকে প্রকাশিত কলকাতা২৪ জানাচ্ছে, কালাপানি থেকে মাত্র ৪০ কিলোমিটার দূরেই একটি সেনা চৌকি বসিয়েছে নেপাল। স্থানীয়রা বলছেন, হেলিকপ্টারে করে সেনাবাহিনীকে যন্ত্রপাতি আনতে দেখেছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, ভারতের তিন অঞ্চলকে নিজেদের ভূ-খণ্ড হিসেবে দাবি করে নতুন মানচিত্র প্রকাশ করেছে নেপাল।

তারও আগে, ভারতের বিহার রাজ্যের নেপাল সীমান্তে গুলি চালিয়ে এক ভারতীয় কৃষককে হত্যা করে নেপালি সৈন্যরা।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, ভারতের তরফ থেকে নেপালের সীমান্ত পরিস্থিতির ব্যাপারে সার্বক্ষণিক নজর রাখা হচ্ছে বলে কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে। এছাড়াও, দ্বি-পাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে পরিস্থিতি সমাধান হওয়া সম্ভব বলেও মনে করছে ভারত।

এ ব্যাপারে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, নেপালের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক মজবুত রয়েছে।

প্রতিক্রিয়ায় নেপালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সীমান্তে নেপালের সৈন্য বৃদ্ধি বা অবকাঠামো নির্মাণ দুই দেশের বন্ধুত্বে কোনো প্রভাব ফেলবে না।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন