বিজ্ঞাপন

ফ্যানে ঝুলন্ত স্ত্রীর লাশ, হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার

June 28, 2020 | 11:36 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রাজধানীর ওয়ারীর গোয়ালঘাট এলাকায় ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় রেশমা আক্তার নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মেয়েটির পরিবারের অভিযোগ, স্বামী রবিন হোসেন তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ফ্যানে ঝুলিয়ে দিয়েছে। এ অভিযোগে দায়ের করা মামলায় রবিনকে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২৭ জুন) দিবাগত রাতে রেশমার মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ। রোববার (২৮ জুন) সকালে লাশ উদ্ধারের পর বিকেলের দিকে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়েছে।

রেশমা মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার বড় ফুলকচি গ্রামের মনু হাওলাদারের মেয়ে। স্বামী রবিন হোসেনের সঙ্গে ওয়ারী গোয়ালঘাট লেনের বাসার ষষ্ঠ তলায় ভাড়া থাকতেন। এই দম্পতির ৯ মাস বয়সী একটি সন্তান আছে।

বিজ্ঞাপন

রেশমার বাবা মনু হাওলাদার সারাবাংলাকে বলেন, প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে আড়াই বছর আগে রবিনের সঙ্গে রেশমার বিয়ে হয়। কয়েকদিন আগে গ্রামের বাড়ি থেকে ঢাকায় আসে তারা। গতকাল (শনিবার) দুপুরের দিকে রেশমা আমাকে ফোন করে জানায়, তার স্বামী রবিন তাকে মারধর করছে।

মনু হাওলাদার অভিযোগ করে বলেন, শনিবার দিবাগত রাতে রবিন তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে। হত্যার সময় রেশমার চিৎকার পাশের বাসার ভাড়াটিয়ারাও শুনতে পেয়েছিল। পরে ভাড়াটিয়ারা ডাকাডাকি করলে একপর্যায়ে রবিন দরজা খুলে দেয়। ভাড়াটিয়ারা রেশমাকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

জানতে চাইলে ওয়ারী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রঞ্জিত সরকার বলেন, মেয়েটির বাবা আমাদের কাছে অভিযোগ করেছেন যে তার মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ফ্যানে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী রবিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি, তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো।

এসআই রঞ্জিত সরকার আরও বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, রেশমাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

সারাবাংলা/এসএসআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন