বিজ্ঞাপন

ফিরে গেছে প্রত্যয়, ম্যানুয়ালি টেনে তোলা হবে মর্নিং বার্ডকে

June 29, 2020 | 9:32 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ১২ ঘণ্টা পরও উদ্ধার করা যায়নি সদরঘাটের শ্যামবাজার এলাকায় আরেক লঞ্চের ধাক্কায় ডুবে যাওয়া লঞ্চ মর্নিং বার্ডকে। লঞ্চটিতে উদ্ধার করতে এসেও ব্যর্থ হয়েছে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়। শেষ পর্যন্ত প্রত্যয় ফিরে গেছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ম্যানুয়ালি টেনে তোলার চেষ্টা করা হবে মর্নিং বার্ডকে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৯ জুন) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মুন্সিগঞ্জের মীরকাদিম কাঠপট্টি থেকে ঢাকায় চলাচলকারী ছোট লঞ্চ মর্নিং বার্ড আরেক লঞ্চ ময়ুর-২-এর ধাক্কায় ডুবে যায়। এরপর সকাল ১১টার দিকে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় লঞ্চটিকে উদ্ধার করতে আসে। তবে বিকেল ৪টার দিকে প্রত্যয় পোস্তগোলা ব্রিজ এলাকায় আটকা পড়ে ফেরত যায়।

আরও পড়ুন- বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি, মরদেহের সংখ্যা বেড়ে ৩২

বিজ্ঞাপন

সোমবার সন্ধ্যার পর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক সালেহ উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, আমরা দিনভর পানির নিচে লঞ্চের ভেতরে আটকে থাকা মরদেহগুলো উদ্ধারে কাজ করেছি। বিকেল ৩টার পর আর কোনো মরদেহ উদ্ধার করা যায়নি। অনুসন্ধান চলছে। এছাড়া লঞ্চটিকে উদ্ধারে উদ্ধারকারী জাহাজের অপেক্ষায় ছিলাম।

সালেহ উদ্দিন বলেন, পানি বেড়ে যাওয়ায় এবং পোস্তগোলায় বুড়িগঙ্গা সেতু-১-এর উচ্চতা কম হওয়ায় যেহেতু উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় দুর্ঘটনাস্থলে আসতে না পেরে ফিরে গেছে। ফলে দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চ মর্নিং বার্ডকে আমরা ম্যানুয়ালি উদ্ধারের চেষ্টা করব।

আরও পড়ুন- লঞ্চডুবির ঘটনা পরিকল্পিত হতে পারে: প্রতিমন্ত্রী

ফায়ার সার্ভিসের এই সহকারী পরিচালক আরও বলেন, বড় একটি লঞ্চে রশি লাগিয়ে মর্নিং বার্ড লঞ্চটিকে টেনে তোলা সম্ভব হবে। আমরা রাতভর কাজ করব। শেষ না হলে আগামীকাল সকালেও উদ্ধার কাজ করা করা হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত একজনও নিখোঁজ থাকবে, ততক্ষণ আমরা উদ্ধার তৎপরতা চালাব।

এদিকে, সোমবার বিকেল পর্যন্ত ডুবে যাওয়া মর্নিং বার্ড লঞ্চ থেকে মোট ৩২ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩০ জনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: নৌপরিবহনের তদন্ত কমিটি

এ দুর্ঘটনা তদন্তে এরই মধ্যে আলাদা আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও নৌপুলিশ। তবে দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানিয়েছেন, এই ‍দুর্ঘটনা পরিকল্পিত হতে পারে।

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন