বিজ্ঞাপন

ছুরি-কাঁচির নিচে যেতে হতে পারে বিপ্লবকে

June 30, 2020 | 3:55 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের সাইনোসাইটিসের পুরোনো সমস্যাটি হঠাৎ করেই মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। নাক বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ঠিক করে শ্বাস নিতে পারছেন না তরুণ এই টাইগার লেগি। তাই আপাতত রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালের নাক, কান, গলা (ইএনটি) বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অধীনে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ১৫ দিন তার চিকিৎসাধীন থাকবেন। এরপরেও সুস্থ না হলে তাকে ছুরি-কাঁচির নিচে যেতে হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

গত বুধবার নাকের সমস্যা নিয়ে অ্যাপালো হাসপাতালে গিয়েছিলেন বিপ্লব। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক তাকে আপাতত ১৫ দিনের ওষুধ দিয়েছেন। ওষুধে সেরে না উঠলে বিপ্লবকে অস্ত্রপচারের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবি’র প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, 'বিপ্লবের ব্যাপারটা সাইনোসাইটিসের। অ্যাপোলো হাসপাতালের নাক, কান গলা বিভাগের ডাক্তার তাকে দেখছেন। উনার পরামর্শক্রমে বিপ্লবের ওষুধ চলছে। ডাক্তার ১৫ দিনের ওষুধ দিয়েছেন। যদি ভালো না হয় অপারেশনের চিন্তা করতে হতে পারে। উনি যেটা ভালো মনে করবেন করবেন।’

করোনাকালে ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্যের তথ্য জানতে বিসিবি প্রথম যেদিন (২৪ জুন) ‘কভিড-১৯ ওয়েল বিয়িং’ অ্যাপটির কার্যক্রম শুরু করল সেদিনই জানা গিয়েছিল আমিনুল ইসলাম বিপ্লব শ্বাস কষ্টজনিত রোগে ভুগছেন। সেদিন বিসিবি’র ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ইনফরমেশন বিভাগের ম্যানেজার নাসির উদ্দিন নাসু জানিয়েছিলেন, অ্যাপের মাধ্যমে দেওয়া ১৮টি প্রশ্নের উত্তর শেষে তাকে ‘রেড ক্যাটাগরি’র অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তিনি এও জানিয়েছিলেন ‘রেড ক্যাটাগরি’ মানেই তিনি বা কেউ করোনাক্রান্ত নন। এর মানে হচ্ছে তার শরীরের কোথাও কোনো সমস্যা আছে। এবং সেটা বোঝামাত্র তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তার শ্বাসকষ্ট হচ্ছে।

এদিকে চলতি মাসের প্রথম দিকে শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন বিপ্লবের বাবা। পরে জানা যায় তার হৃদযন্ত্রে সমস্যা। অ্যাজমা রোগী হওয়ায় প্রচন্ড শ্বাস কষ্ট হচ্ছিল তার। বিপ্লবের সমস্যাটিও নাকি বেশ পুরোনো।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন