বিজ্ঞাপন

কিটের অনুমোদন না পাওয়ায় বিষন্ন ডা. জাফরুল্লাহ, স্বাস্থ্যের অবনতি

June 30, 2020 | 7:21 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ‘জিআর কোভিড-১৯ র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি কিট’- নিবন্ধন না পাওয়ায় বিষন্নতায় ভুগছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তার শারীরিক অবস্থার অবনতিও হয়েছে কিছুটা।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (৩০ জুন) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে ‘জিআর কোভিড-১৯ র‌্যাপিড ডট ব্লট কিট’ প্রকল্পের কো-অর্ডিনেটর ডা. মুহিব উল্লাহ খোন্দকার এ তথ্য জানান।

বিবৃতি বলা হয়েছে, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে সেকেন্ডারি নিউমোনিয়ায় ভুগছেন। সপ্তায় তিন দিন ডায়ালাইসিস নির্ভর বিকল কিডনি রোগী হিসেবে দীর্ঘ এক মাস রোগভোগের কারণে শরীর খুবই দুর্বল। স্বরযন্ত্রের প্রদাহের কারণে বর্তমানে কথা বলা নিষেধ। তবে দেশের হাজার মানুষের দোয়া ও মানসিক দৃঢ়তায় রোগের সঙ্গে লড়ে যাচ্ছেন তিনি।’

বিজ্ঞাপন

ডা. মুহিব উলল্লাহ খোন্দকার জানান, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ দেখে গিয়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে। তিনি প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়েছেন এবং উনার অবস্থার অগ্রগতি সম্পর্কে নিয়মিতভাবে জানাতে বলেছেন।

তিনি জানান, ‘জিআর কোভিড-১৯ র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি কিট’ নিবন্ধন না পাওয়ায় ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী খুবই বিষন্ন। তবে কিট উন্নয়নে ওষুধ প্রশাসন ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) সহায়তা করবে জেনে উনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন। গণস্বাস্থ্য আরএনএ বায়োটিক লিমিটেড কিটের উন্নত সংস্করণ তৈরি করছে। ডা. জাফরুল্লাহ আশা প্রকাশ করেছেন, শিগগিরই কিটটি নিবন্ধন পাবে এবং বিএসএমএমইউ অ্যান্টিজেন কিটের পরীক্ষার কাজ শুরু করবে।

বিজ্ঞাপন

ডা. মুহিব উল্লাহ খোন্দকার আরও জানান, গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে কোভিড-১৯ রোগীদের জন্য শিগগিরই ১৫ শয্যার একটি আইসিইউ চালু করতে যাচ্ছে। অসুস্থতার মধ্যেও ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী অর্থ জোগারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এবং সার্বিক কর্মকাণ্ড পর্যবেক্ষণ করছেন।

সারাবাংলা/এজেড/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন