বিজ্ঞাপন

কারও বিরুদ্ধে যেন ব্যবস্থা নিতে না হয়: স্বাস্থ্য সচিব

July 2, 2020 | 5:46 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ‘কোন জায়গাতেই শতভাগ কিছু করা যাচ্ছে না। তবু আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমাদের যার যার জায়গা থেকে যতটুকু সম্ভব কাজ করতে হবে। কারও বিরুদ্ধে যেন ব্যবস্থা নিতে না হয়।’

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্য সচিব মো. আব্দুল মান্নান।

পরিদর্শন শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘কোভিড রোগীরা কেমন আছেন, তাদের জন্য চিকিৎসার জন্য কতজন ডাক্তার রয়েছেন, নার্স কতজন, প্যাথলজিস্ট কতজন, এমনকি কতজন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন- সেগুলো সরেজমিনে দেখতে এসেছি ‘

বিজ্ঞাপন

সচিব বলেন, ‘কতজন ডাক্তার কোভিড ইউনিটে রোগীদের টেককেয়ার করছে। মেডিকেল অফিসার থেকে শুরু করে অধ্যাপক পর্যন্ত প্রত্যেকের পরিসংখ্যান আমি নিয়েছি। কোভিড রোগী ভর্তি হওয়ার পর তাদের অবস্থা কি হয়- এটা জানার খুব দরকার।’

ঢামেকের ২০ কোটি টাকার হিসাব নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘এটা আমরা দেখছি। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে একটা নির্দেশনা দিয়েছে। এই পেমেন্টটা দেওয়ার আগে খতিয়ে দেখবে। আমরা একটা প্রতিবেদন চেয়েছি পরিচালকের কাছে। লিখিত রিপোর্ট চেয়েছি। ওভারওল একটা প্রতিবেদন তিনি দিবেন। দেওয়ার পরই আমরা দেখব, কোন অনিয়ম হয়েছে কি না।’

বিজ্ঞাপন

কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মো. আব্দুল মান্নান বলেন, ‘এটা কি খুব বেশি? ২০০ টাকা মিনিমাম একটা বিষয়। অনেকেই একটু কাশি দিলেই হাসপাতালে আসে পরীক্ষা করতে। এটা যেন না হয়।’

অনেক ডাক্তার হোটেলের করিডোরে থাকছে বলে অভিযোগ রয়েছে- এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটা ভিত্তিহিন কথা। এটার কোনো সুযোগ নাই। ডাক্তারদের সঙ্গে সরকার আছে। তাদের থাকা-খাওয়াসহ কোনো বিষয়ে যেন সমস্যা না হয় সেগুলো আমরা দেখছি। করিডোরে থাকার প্রশ্নই আসে না। যদি কোনো চিকিৎসককে হোটেলে রাখতে না পারি। তাহলে যে ডরমেটরিগুলো আছে বিকল্প হিসেবে সেগুলো ব্যবহার করতে বলছি। তাতে সরকারের কিছু সাশ্রয় হবে।’

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য বলেন, ‘যারা কথা বলছেন, সমলোচনা করছেন, তারা কিন্তু কাজ করতে আসবে না। আমাদের পক্ষ থেকে যতটুকু সাপোর্ট দেওয়ার দরকার আমরা দিচ্ছি।’

সারাবাংলা/এসএসআর/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন