বিজ্ঞাপন

সাউদাম্পটনে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজের ‘বদলে যাওয়া ক্রিকেট’

July 7, 2020 | 9:51 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

করোনাভাইরাসের আতঙ্ক এখনো কাটেনি। চীন থেকে ছড়িয়ে গত মার্চের শুরু থেকে বিশ্বকে আতঙ্কিত করে রেখেছে ভাইরাসটি। তাই বলে কী জীবন থেমে থাকছে! মৃত্যুভয়কে পাশ কাটিয়ে কর্মক্ষেত্রে ফিরেছে মানুষ। অন্যান্য কার্যক্রমও শুরু হচ্ছে বিভিন্নভাবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে বুধবার (৮ জুলাই) থেকে মাঠে গড়াচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। সাউদাম্পটনে কাল থেকে শুরু হবে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের প্রথম টেস্ট।

বিজ্ঞাপন

নিশ্চয় রোমাঞ্চিত ক্রিকেটরসিকরা। সব মিলিয়ে ১১৭ দিন পর পুনরায় মাঠে ফিরছে ছেলেদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। তবে ১১৭ দিন আগের ক্রিকেট আর এই ক্রিকেটে আকাশ পাতাল তফাৎ। করোনা পাল্টে দিয়েছে ক্রিকেটের অনেকটা। সংক্রমন থেকে বাঁচতে নানাবিধ পরিবর্তন দেখা যাবে খেলায়।

স্টেডিয়ামে ঢুকতে পারবে না দর্শকরা, পুরো স্টেডিয়াম থাকবে জীবাণুমুক্ত। দুই দলের ক্রিকেটারদের অনেক আগ থেকেই হোটেলবন্দি করা হয়েছে। ম্যাচ চলাকালে প্রতিদিনই খেলোয়াড়দের শারীরীক অবস্থার খেয়াল রাখা হবে এবং কোভিড-১৯ পরীক্ষা করে দেখা হবে। মাঠের ক্রিকেটেও থাকছে বড় পরিবর্তন। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ম্যাচে অন্য দেশের আম্পায়ার নেয়নি ইংল্যান্ড। ফিল্ড আম্পায়ার, টিভি আম্পায়ার এবং ম্যাচ রেফারিও থাকবেন ইংল্যান্ডের। সবচেয়ে আলোচিত পরিবর্তন বলে লালা মাখানোয় নিষেধাজ্ঞা।

বিজ্ঞাপন

বল উজ্জল রেখে সুইং আদায় করতেে আদিকাল থেকেই বলে লালা মাখিয়ে অভ্যস্ত বোলাররা। বোলারদের হাহাকার উপেক্ষা করে করোনাকালে ক্রিকেটে স্বাস্থ্যবিধির আওতায় এই বিষয়টি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কাল থেকে তার প্রয়োগ দেখা যাবে। লালা মাখানোর অভ্যাস পরিহারে কড়াকড়িও করবে আইসিসি। দুবার সাবধান করার পরও কোন দলের ক্রিকেটার বলে লালা মাখালে পাঁচ রান পেনাল্টির নিয়ম করা হয়েছে।

এতো গেল করোনায় বিভিন্ন নিয়ম পরিবর্তনের আলোচনা। মাঠের লড়াইয়েও বাড়তি আগ্রহ খুঁজছেন অনেকে। ইংল্যান্ড অনেকদিন ধরেই সাদা পোশাকের ক্রিকেটে দেশের মাটিতে বড্ড শক্ত প্রতিপক্ষ। দুর্দান্ত এক পেস আক্রমণ নিয়ে তাদের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের সঙ্গে কেমার রোচ, শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের মতো পেসার আছে ক্যারিবিয়ানদের স্কোয়াডে। এই শক্তিতে ইংলিশদের কাবু করে ক্যারিবিয়ানদের টেস্ট জয়ের সূত্র বাতলে দিতে চাইলেন ব্রায়ান লারা।

সাউদাম্পটন টেস্টের আলোচনায় ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি বলেছেন, '(ইংল্যান্ডকে) খুব দ্রুত গুঁড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করতে হবে। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডকে সহজে হারানো যায় না এবং তারা অপ্রতিরোধ্য ফেবারিট। তাদের শুরু থেকেই আক্রমণ করতে হবে এবং ইংল্যান্ডের ওপর প্রভাব বিস্তার করতে হবে। আমি মনে করি না, তারা (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) পাঁচ দিন টিকতে পারবে। তাই তাদের ম্যাচগুলোকে চারদিনের ভাবতে হবে। তাদের এগিয়ে যেতে হবে এবং সেটা ধরে রাখতে হবে।'

হোল্ডারের দল মাঠে লারার কথার প্রতিফলন ঘটাতে পারলেই হয়। ইংল্যান্ডের মাটিতে ক্যারিবিয়ানরা সিরিজ জিততে পারেনি সেই ১৯৮৮ সালের পর থেকে। শক্ত পেস আক্রমণ নিয়ে এবার সেই আক্ষেপ ঘুচাতে পারে কিনা সেটাই দেখার বিষয়।

এদিকে, ইংল্যান্ড খেলতে নামবে নিয়মিত অধিনায়ক জো রুটকে ছাড়াই। সন্তান সম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে প্রথম টেস্ট থেকে ছুটি নিয়েছেন রুট। তার অনুপস্থিতিতে ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দিবেন অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। তবে রুট না থাকলেও অভিজ্ঞদের সঙ্গে বেশ কয়েকজন তরুণের মিশেলে ইংল্যান্ডের বর্তমান দলটা যথেষ্টই শক্তিশালী। কাল বাংলাদেশ সময় সাড়ে ৪টায় শুরু হবে প্রথম দিনের খেলা।

দুদলের সম্ভাব্য একাদশ:

ইংল্যান্ড: রোনি বার্নস, ডম সিবলি, জ্যাক ক্রাওলি, অলি পোপ, জো ডেনলি, বেন স্টোকস (অধিনায়ক), জস বাটলার (উইকেটরক্ষক), ডম বেস, জোফরা আর্চার, স্টুয়ার্ট ব্রড ও জেমস অ্যান্ডারসন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ক্রেইগ ব্রাফেট, জোহান ক্যাম্পাবল, শেই হোপ, শামার্থ ব্রোকস, রোস্টন চেজ, জার্মেই ব্লাকউড, শেন দাউরিচ (উইকেটরক্ষক), জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), কেমার রোচ, অলগরি জোসফ ও শেনন গ্যাব্রিয়েল।

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন