বিজ্ঞাপন

রিজেন্ট সাহেদের দুর্নীতির অনুসন্ধান শুরু হবে শিগগিরই— দুদক সচিব

July 9, 2020 | 11:02 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমের অনিয়ম ও দুর্নীতির অনুসন্ধান খুব শিগগিরই শুরু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সচিব দিলোয়ার বখত।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

দুদক সচিব বলেন, অনুসন্ধানের স্বার্থে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের কারও নাম জিজ্ঞাসাবাদে উঠে এলে তাদেরও তলব করা হবে। আমরা এখন এন৯৫ মাস্ক ও পিপিই দুর্নীতির সঙ্গে কারা জড়িত চিল, তা জানতে এ জিজ্ঞাসাবাদ করছি। রিজেন্ট হাসপাতালের বিষয়টিও আমলে নেওয়া হবে। শিগগিরই রিজেন্টের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধান শুরু হবে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত ১ জুলাই স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট বেশকিছু কর্মকর্তাকে তলব করে দুদক। অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে কোভিড-১৯-এর চিকিৎসার জন্য নিম্নমানের মাস্ক, পিপিই ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সরঞ্জাম কেনাসহ বিভিন্ন হাসপাতালে সরবরাহের নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তদন্তের অংশ হিসেবে তাদের তলব করা হয়।

এর মধ্যে গতকাল বুধবার (৮ জুলাই) জেএমআই হসপিটাল রিক্যুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রাজ্জাক ও তমা কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড কোং লিমিটেডের সমন্বয়কারী (মেডিকেল টিম) মো. মতিউর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। তলব করা হলেও এদিন হাজির হননি এলান করপোরেশনের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিনুল ইসলাম আমিন। আর আজ বৃহস্পতিবার মেডিটেক ইমেজিং লিমিটেডের পরিচালক মো. হুমায়ুন কবিরকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক। তবে ঠিকাদার মিঠু নিজেকে নিদো‍র্ষ দাবি করে দুদকে চিঠি দিয়েছেন।

সারাবাংলা/এসজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন