বিজ্ঞাপন

টানা ৯ম জয়ে ৩৪’র আরও কাছে রিয়াল

July 14, 2020 | 3:57 am

স্পোর্টস ডেস্ক

গ্রানাডাকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে লা লিগার শিরোপা জয়ের আরও কাছে পৌছে গেল রিয়াল মাদ্রিদ। এই জয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার চেয়ে আবারও চার পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে গেল লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। রিয়ালের হয়ে গোল করেন ফারল্যান্ড মেন্ডি এবং করিম বেনজেমা। গ্রানাডার বিপক্ষে খেলতে নামার আগে বার্সার থেকে মাত্র এক পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে ছিল রিয়াল। তাই তো ম্যাচ জয়ের বিকল্প ছিল না জিদানের দলের সামনে। এবার লিগ জিতলে লা লিগায় রিয়ালের শিরোপা সংখ্যা দাঁড়াবে ৩৪'এ।

বিজ্ঞাপন

এদিন দলের দুই সেরা তারকা এডেন হ্যাজার্ড এবং ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে বেঞ্চে রেখে পাঁচ মিডফিল্ডার নিয়ে গ্রানাডার আতিথ্য নেয় রিয়াল। মধ্যমাঠে নিয়মিত সদস্য ক্যাসেমিরো, টনি ক্রুস আর লুকা মদ্রিচের সঙ্গে মাঠে নামেন ফেদেরিখো ভালভার্দে এবং ইস্কো অ্যালাকর্ন। আর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফেরেন সার্জিও রামোস এবং ড্যানি কার্ভাহাল।

ম্যাচের মাত্র ১০ মিনিটেই ক্যাসেমিরোর কাছ থেকে মধ্যমাঠে বল পেয়ে একক প্রচেষ্টায় দুর্দান্ত এক গোল করেন ফারল্যান্ড মেন্ডি। মধ্যমাঠ থেকে বল পেয়ে দুই খেলোয়াড়কে কাটিয়ে গ্রানাডার ডি বক্সের বাঁ প্রান্তে প্রবেশ করেন মেন্ডি। সেখান থেকে দুই ডিফেন্ডারের  মধ্য দিয়ে বল নিয়ে যান পোস্টের কাছে। আর প্রায় শূন্য ডিগ্রি কোণ থেকে দুর্দান্ত এক শটে গোল করেন এই ফ্রেঞ্চ ফুলব্যাক। তাতেই রিয়াল এগিয়ে যায় ১-০'তে।

বিজ্ঞাপন

টানা ৯ম জয়ে ৩৪’র আরও কাছে রিয়াল

এরপর দ্বিতীয় গোল করতে খুব বেশি সময় নেয়নি লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। মিড ফিল্ডে ইস্কো এবং মদ্রিচের দুর্দান্ত বোঝা পড়া তখন জমে উঠেছে। ম্যাচের ১৬তম মিনিটে ইস্কোর ব্যাক হিল থেকে মধ্যমাঠের রেখার ঠিক সামনে বল পেয়ে যান মদ্রিচ। তাকিয়ে দেখে নেন কোন প্রান্তের খেলোয়াড় বেশি ভালো পজিশনে আছেন। এরপর জাদুকরী এক পাসে বল পাঠিয়ে দেন বাঁ প্রান্তে থাকা করিম বেনজেমার কাছে। সেখান থেকে মেন্ডির করা প্রথম গোলের সদৃশ দ্বিতীয় গোলটি করেন বেনজেমা। রিয়াল এগিয়ে যায় ২-০ গোলের ব্যবধানে।

এটি চলতি মৌসুমে লা লিগায় বেনজেমার ১৯তম গোল। ম্যাচের ২০ মিনিটের মধ্যেই ২-০'তে এগিয়ে বেশ ফুরফুরে মেজাজে খেলতে থাকে গ্যালাক্টিকোরা। আর প্রথমার্ধ গ্রানাডার ওপর চড়াও হয়েই খেলে জিদানের শিষ্যরা। তবে প্রথমার্ধে আক্রমণ করেও আর গোলের দেখা পায়নি বেনজেমার।

দ্বিতীয়ার্ধে যেন পাশার দান উলটে যায়। বিরতি থেকে ফিরে উজ্জীবিত গ্রানাডা মাত্র ৪ মিনিটের মধ্যেই দুর্দান্ত এক গোল করে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেয়। ম্যাচের ৪৯তম মিনিটে মধ্যমাঠে বল হারান ক্যাসেমিরো। আর সেখান থেকেই রিয়ালের ডি বক্সের ডান প্রান্তে বল পান ডারউইন মাচিস। কোর্তোয়ার দুই পায়ের ভেতর দিয়ে বল পাঠিয়ে দেন জালে। তাতে রিয়ালের বিপক্ষে গোল ব্যবধান ২-১।

টানা ৯ম জয়ে ৩৪’র আরও কাছে রিয়াল

টানা পাঁচ ম্যাচে ক্লিনশিট রাখার পর ষষ্ঠ ম্যাচে এসে গোল হজম করল রিয়াল। পুনরায় ফুটবল শুরুর পর এই গোল নিয়ে রিয়াল মাত্র দু'টি গোল হজম করেছে। আর চলতি মৌসুমে লিগে এটি ছিল রিয়ালের বিপক্ষে ২১তম গোল। তবে শেষ পর্যন্ত আর কোনো অঘটন না ঘটায় ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে রিয়াল। আর সেই সঙ্গে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই শীর্ষ স্থান পোক্ত করে জিদানের শিষ্যরা।

এই জয়ে গাণিতিকভাবে রিয়ালের শিরোপা নিশ্চিত না হলেও লিগ জয়ের একদম কাছে পৌঁছে গেছে রিয়াল। লিগে বাকি থাকা দুই ম্যাচের মধ্যে একটি জয় এবং অপরটিতে ন্যূনতম ড্র করলেও লিগ নিশ্চিত লস ব্ল্যাঙ্কোসদের। অথবা বাকি দুই ম্যাচে ড্র করলেও শিরোপা জয়ের উল্লাসে ভাসবে গ্যালাক্টিকোরা।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন