বিজ্ঞাপন

৩ মাসে কৃষকের ব্যাংক হিসাব কমেছে ৩৬ হাজার

July 14, 2020 | 6:21 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: মাত্র তিন মাসের ব্যবধানে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির আওতায় খোলা কৃষকের ৩৬ হাজার ব্যাংক হিসাব কমে গেছে। চলতি বছরের মার্চ শেষে কৃষকের ব্যাংক হিসাবের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ১ লাখ ৫০ হাজার ৭৯৪টি। গত ডিসেম্বর মাস শেষে এই হিসাবের সংখ্যা ছিল ১ কোটি ১ লাখ ৮৬ হাজার ৬০৫টি। ফলে তিন মাসের ব্যবধানে কৃষকের ব্যাংক হিসাব কমেছে ৩৫ হাজার ৮১১টি। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন ডিপার্টমেন্টের মহাব্যবস্থাপক আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে। সার্কুলারে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৫০ লাখ দরিদ্র পরিবারের কাছে টাকা পৌঁছে দিতে ১০ টাকার অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘জানুয়ারি থেকে মার্চ প্রান্তিকে কৃষকদের ৩৬ হাজার ব্যাংক হিসাব কমে যাওয়ার কারণ এখনও সঠিকভাবে জানা যায়নি। তবে কারণ জানতে চেয়ে সোনালী ব্যাংকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, হালনাগাদের সময় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও তথ্যাদি সরবরাহ করতে না পারায় কিছু হিসাব বাতিল হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক অন্তর্ভুক্তির হালনাগাদ প্রতিবেদন বলা হয়েছে, দেশব্যাপী কৃষকদের ব্যাংক হিসাব কমলেও সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় ভাতাভোগীর সংখ্যা বেড়েছে সাড়ে ১২ লাখ। জানুয়ারি থেকে মার্চে মুক্তিযোদ্ধার হিসাব এবং ১০ টাকা, ৫০ টাকা ও ১০০ টাকার হিসাবের সংখ্যাও বেড়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বিশেষ সুবিধার আওতায় দেশে প্রায় ২ কোটি ১৩ লাখ ব্যাংক হিসাব খোলা হয়েছে। এতে ২ হাজার ৩৮৫ কোটি টাকা জমা রয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৫১ লাখ হিসাব সরকারি ভর্তুকি ও বেতন প্রদানে ব্যবহার হচ্ছে। এসব হিসাবে ৯১৫ কোটি টাকা ভর্তুকি ও বেতন দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে ৭২ হাজার হিসাবে বিশেষ সুবিধার ঋণ গেছে ৩৪৯ কোটি টাকা, ৬৫ হাজার ১৮৪টি হিসাবে ২৪৬ কোটি টাকা প্রবাসী-আয় জমা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে কৃষকদের হিসাব ১ কোটি ১ লাখ ৫০ হাজার ৭৯৪টি। এর পরই সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় ভাতাভোগীদের হিসাব ৬৮ লাখ ৬৪ হাজার ৫২টি, অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান হিসাব রয়েছে ২৭ লাখ ৮ হাজার ৪০৯টি, পোশাক শ্রমিকদের ব্যাংক হিসাবের সংখ্যা ৩ লাখ ২২ হাজার ২৪৪টি এবং মুক্তিযোদ্ধাদের ২ লাখ ৪৮ হাজার ১৮৯টি।

সারাবাংলা/জিএস/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন