বিজ্ঞাপন

মাস্ক পরেও যেভাবে সাজবেন

July 30, 2020 | 12:00 pm

লাইফস্টাইল ডেস্ক

সময়টা এখন আমাদের অনুকূলে নাই। করোনাভাইরাসের কারণে বদলে গেছে পরিস্থিতি। ফলে বদলে গেছে প্রতিদিনের অভ্যাস। এখন স্বাস্থবিধি মেনে বাইরে বের হতে হচ্ছে। নিজের ও অন্যদের সুরক্ষার জন্য মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। প্রশ্ন আসতে পারে, মাস্কই যদি পরি তাহলে সাজগোজের কি দরকার?

বিজ্ঞাপন

কিন্তু মেকআপ অনেকের কাছেই শখ। কারও কাছে বা শিল্প। অনেকেই সাজতে ভালোবাসেন তাই তারা মেকআপ করেন। মাস্ক পরে মেকআপের প্রয়জনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন আসলেও সেটিতাই গ্রহণযোগ্য নয়। মাস্কের সঙ্গেই মানানসই মেকআপ করতে হবে। করোনাকালে এলো আরও একটা উৎসব। সীমিত পরিসরে অনেকেই ঘোরাঘুরি করছেন। আসুন দেখে নেই উৎসবের এই সময়ে মাস্ক পরেও কীভাবে সাজগোজ করা যায়।

এসময়ে যারা মেকআপ করতে চান, তারা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বেসিক মেকআপে আস্থা রাখুন। ম্যাট লুক, স্মোকি আইজ়, নুড লিপসেই সেরে ফেলুন সাজ।

বিজ্ঞাপন

মাস্ক পরলে তা নাক আর মুখের উপর চেপে থাকে, ফলে সেখানে বাতাস ঠিকমতো পৌঁছে না। ত্বকের এই অংশে তাপমাত্রা আর আর্দ্রতা খুব বেড়ে যায়। একটু খেয়াল করলেই বুঝতে পারবেন, মাস্ক পরলে মুখে গরম লাগে, ঘেমে যায়। গরম আর ঘাম একসঙ্গে ত্বকে বিক্রিয়া করে, ফলে ব্রণ, ত্বকের রঙে তফাত, ফাইন লাইনের মতো সমস্যা দেখা দেয়। এজন্য মেকআপ করার ক্ষেত্রে হতে হবে সতর্ক। আসুন দেখে নেই এসময়ে কীভাবে সাজগোজ করলে পাওয়া যাবে স্বস্তি।

মাস্ক পরার আগে মুখে অবশ্যই ময়শ্চারাইজার দিন। তাছাড়া ঘাম দূর করতে মিস্ট স্প্রে করে নিতে পারেন। এতে ত্বকে বাড়তি সুরক্ষা দেবেন। গরমের এই সময়ে তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ওয়াটার বেজড বা জেল ক্রিম ভালো। আর এখন দিন হোক কি রাত, মাস্ক পরলে মুখ ঘামবেই। তার উপর মুখে ভারী মেকআপ করলে তা ঘামের সঙ্গে মিশে ত্বকে বিক্রিয়া করতে পারে। তাই মেকআপ খুব হালকা রাখুন, ফাউন্ডেশন, কমপ্যাক্ট যতটা সম্ভব কম মাখুন। খুব প্রয়োজন না হলে কনসিলার দেওয়ার প্রয়োজন নাই। আপনি ত্বক নিয়ে আত্মবিশ্বাসী অনুভব করলে ময়েশ্চারাইজারের উপর শুধুই কমপ্যাক্ট পাউডার দিয়ে সেরে ফেলতে পারেন বেজ মেকআপ।

বিজ্ঞাপন

চোখ এখন মুখের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। আগে সবাই সাজের জন্য ঠোঁটের উপর বেশি গুরুত্ব দিলেও এখন মাস্ক ব্যবহারের কারণে চোখের গুরুত্ব বেড়েছে। এক্ষেত্রে আইব্রো কিটস এবং পেন্সিল, আই শ্যাডো, আইলাইনার ও মাসকারা ব্যবহার করে চোখ সাজাতে হবে। তবে চেষ্টা করুন প্রসাধন যতটুকু না হলেই নয়, ততটুকু ব্যবহার করতে।

আই মেকাপে আপনার ইচ্ছামতো সৃজনশীলতা দিয়ে চোখের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলুন। তবে গরমের কারণে চোখের সাজে হালকা কিন্তু রঙিন ভাব রাখলেই ভালো দেখাবে। টেনে আইলাইনার দিন, ক্যাটস আই স্টাইলে সাজান অথবা শুধুই গাঢ় করে কাজল দিন। একাধিক রঙের কাজল বা আইলাইনারও ব্যবহার করতে পারেন পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে। আর মাশকারা লাগাতে ভুলবেন না। লেন্স এবং ফলস ল্যাশও পরতে পারেন। এছাড়া আই ভ্রর সাজে গুরুত্ব দিন। আপনার ভ্রু যদি মোটা হয় তবে হালকা চিকন করে নিন। ভ্রু ভরাট থাকলে চোখের সৌন্দর্য বেশি ফুটে ওঠে।

বিজ্ঞাপন

ভারী মেকআপ করার প্রয়োজন হলে হাই কভারেজ ম্যাট ফাউন্ডেশন ব্যবহার করুন। ফাউন্ডেশন ব্যবহারের আগে ভালোভাবে ফেস ওয়াশ দিয়ে অতিরিক্ত তেল দূর করে নিন। সেই পুরনো টোটকা মেকআপের আগে মুখে বরফ ঘষে নেওয়া কাজে লাগবে এখন। তারপর প্রাইমার দিয়ে সেট করে ফাউন্ডেশন লাগান। ত্বক তৈলাক্ত হলে ম্যাট ফাউন্ডেশনের কারণে রুক্ষ হয়ে যেতে পারে। তাই মেকআপ লাগানোর আগে ভালো ময়েশ্চারাইজার দিয়ে ত্বক প্রস্তুত করে নিন।

লিপস্টিক ব্যবহারই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। মাস্ক মুখ ঢেকে রাখে বলে ঠোঁট থেকে লিপস্টিক ছড়ানোই স্বাভাবিক। মাস্ক খোলা না লাগলে লিস্পস্টিক না দিয়ে শুধু চ্যাপস্টিক দিন। আর লিপস্টিক ব্যবহার করতে চাইলে ম্যাট লিপস্টিক বা লিকুইড লিপস্টিক ব্যবহার করুন। অন্য লিপস্টিক হলে প্রথমে ঠোঁটে লিপস্টিক লাগিয়ে তারপর টিস্যু দিয়ে চাপ দিয়ে তার ওপর একটু পাউডার লাগিয়ে সেট করে নিন। ব্যস হয়ে গেল ম্যাট।

বিজ্ঞাপন

এসময়ের সাজে কন্ট্যুরিং, ব্লাশন খুব একটা প্রয়োজন নাই। কপালের দিকে হালকা করে পাউডার কন্ট্যুর লাগাতে পারেন। আর সাজ শেষ করার আগে চিকবোন, ভ্রুর নীচে ও কপালের উঁচু জায়গায় হাইলাইটার দিন। আর সবশেষে মেকআপ সেটিং স্প্রে দিতে ভুলবেন না। এই গরমে মেকআপ নষ্ট হওয়ার হাত থেকে সেটিই রক্ষা করবে আপনার সাজগোজ।

এবার আসে চুলে সাজ। যারা চুল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে ভালোবাসেন তাদের জন্যও সময়টা চ্যালেঞ্জিং। কারণ, মাস্ক ব্যবহার করার কারনে চুলের সাজে আনতে হয় ভিন্নতা। মাস্কের রং ও ডিজাইনের উপর নির্ভর করে চুলের সাজ দিতে হয়।

সৌন্দর্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চুল নারীদের সৌন্দর্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। যার চুল যতো সুন্দর তাকে দেখতে ততোটা সুন্দর লাগে। বাইরে বের হওয়ার উদ্দেশ্যের উপর নির্ভর করবে তার চুলের সাজ ও মেকআপ। তাই চুলের টেক্সচার অর্থাৎ চুল দেখতে কেমন লাগছে সেটিই গুরত্ব দিন। শুধুই আয়রন বা কার্ল করে ছেরে রাখতে পারেন। অথবা চুল সুন্দর করে পরিপাটি করে বেনি বা ঝুঁটি করে নিতে পারেন।

সারাবাংলা/আরএফ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন