বিজ্ঞাপন

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঈদ উদযাপন

July 31, 2020 | 4:43 pm

সারাবাংলা ডেস্ক

ঢাকা: সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন জেলায় উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল আজহা। জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির ঘোষণা অনুযায়ী বাংলাদেশে আগামীকাল শনিবার (১ আগস্ট) ঈদুল আজহা পালন করা হলেও তারা আজ শুক্রবার (৩১ জুলাই) সকালেই জামাতে পড়েছেন ঈদের নামাজ, পালন করছেন ঈদ। দিচ্ছেন কোরবানি।

বিজ্ঞাপন

বিভিন্ন জেলা থেকে সারাবাংলার ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্টদের পাঠানো সংবাদ—

নারায়ণগঞ্জ
জেলার ফতুল্লার লামাপাড়া এলাকায় সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৩১ জুলাই) সকাল ৯টায় হযরত শাহ্ সুফী মমতাজিয়া এতিমখানা ও হেফজখানা মাদ্রাসায় ‘জাহাগিরিয়া তরিকার’ অনুসারীরা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে তারা ঈদ উদযাপন করে।

বিজ্ঞাপন

প্রতি বছরের মতো এবারও ঈদের জামাতে অংশ নিতে গাজীপুরের টঙ্গী, ঢাকার কেরানীগঞ্জ, পুরাতন ঢাকা, ডেমরা, সাভার এবং নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ,বন্দর ও সোনারগাঁ উপজেলা থেকে মুসল্লিরা অংশ নেয়।

ঈদের জামাতের ইমামের দায়িত্ব পালন করেন হযরত শাহ্ সুফী মমতাজিয়া মাদ্রাসার হাফেজ মাওলানা আনোয়ার হোসেন শুভ। জামাত শেষে কোরবানির পশু জবাই করেন তারা।

বিজ্ঞাপন

শরীয়তপুর
শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার সুরেশ্বর দরবার শরীফের ভক্তরা সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে ঈদ উদযাপন করছেন। জেলার ২০টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ শুক্রবার এই যাপনে সামিল হন।

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঈদ উদযাপন

বিজ্ঞাপন

 

সুরেশ্বর দরবার শরীফের গদিনিশান পীর কামাল নুরী জানান, দরবার শরীফের পীর জানশরীফ মাওলানার আমল থেকে সৌদি আরব ও বিশ্বের অন্যান্য দেশের সাথে মিল রেখে তারা ঈদ পালন করে আসছে। মাওলানার মৃত্যুর পর তার ভক্ত ও মুরিদানরা এই নিয়ম মেনেই ঈদ পালন করছেন।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় দরবার শরীফের মাঠ ময়দানে ঈদুল আজহার নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদ জামায়েতে সুরেশ্বর দরবার শরিফের ভক্ত ও মুরিদানরা অংশ নেন।

ঝিনাইদহ
সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার কয়েকটি গ্রামের শতাধিক ব্যক্তি ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন। শুক্রবার সকালে উপজেলা শহরের চটকাবাড়িয়া ঈদগাপাড়া জামে মসজিদে এ নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন রেজাউল ইসলাম।

দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে হরিণাকুন্ডু উপজেলার চিথলীপাড়া, ভালকী, বৈঠাপড়া ও ফলসিসহ কয়েকটি গ্রামের মানুষ ঈুদল ফিতর ও ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করে আসছেন।

চাঁদপুর
সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে চাঁদপুরের ৪০টি গ্রামে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে উৎসব মুখর পরিবেশে উদযাপিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আযহা। হাজীগঞ্জের সাদ্রা দরবার শরীফ সংলগ্ন বায়তুল মামুর জামে মসজিদে সকাল পৌনে ৮টায় ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

ঈদের নামাজে ইমামতি করেন, সাদ্রা রহমানিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা কাউছার হামিদ নেছারী। এ সময় শতাধিক মুসল্লি ঈদের জামাতে অংশ নেয়। পরে ক্রমান্বয়ে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

হাজীগঞ্জ, ফরিদগঞ্জ, মতলব, কচুয়া ও শাহরাস্তিসহ ৫ উপজেলার প্রায় ৪০টি গ্রামে আজ আগাম ঈদ উদযাপিত হচ্ছে। নামাজ শেষে দেশের শান্তি কামনায় মোনাজাত করা হয়।

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঈদ উদযাপন

লক্ষ্মীপুর
সামাজিক দূরত্ব মেনে সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে লক্ষ্মীপুরে ১১টি গ্রামে শুত্রুবার ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও, জয়পুরা, বিঘা, বারো ঘরিয়া, হোটাটিয়া, শরশোই, কাঞ্চনপুর ও রায়পুর উপজেলার কলাকোপা ও সদর উপজেলার বশিকপুরসহ ১১টি গ্রামের প্রায় সহস্রাধিক মুসল্লি ঈদুল ফিতর উদযাপন করছেন।

এদিন সকাল ৭টায় রামগঞ্জ উপজেলার খানকায়ে মাদানিয়া কাসেমিয়া মাদ্রাসায় ও নোয়াগাঁও বাজারের দক্ষিণ-পূর্ব নোয়াগাঁও ঈদগাহ ময়দানে ঈদের নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন মাওলানা রুহুল আমিন। মাওলানা ইসহাক (রা.) অনুসারী হিসেবে এসব এলাকার মানুষ পবিত্র ভূমি মক্কা ও মদিনার সাথে সঙ্গতি রেখে ঈদসহ সব ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছে। এসব গ্রামের মুসল্লিরা গত ৪০ বছর যাবত সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে ঈদ উদযাপন করছেন।

সারাবাংলা/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন