বিজ্ঞাপন

এবার অনলাইনে বিক্রি হয়েছে ২৭ হাজার কোরবানির পশু

August 1, 2020 | 3:45 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ডিজিটাল পদ্ধতিতে পশু বেচাকেনার জন্য ই-কমার্সের সহযোগিতায় ডিজিটাল হাট সার্ভিস চালু করেছিল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। সংস্থাটির এই উদ্যোগে যথেষ্ট সাড়াও দিয়েছে নগরবাসী। ৩১ জুলাই পর্যন্ত এই ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ২৭ হাজার কোরবানির গরু ও ছাগলসহ অন্যান্য পশু বিক্রি হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সেই সঙ্গে অনলাইন থেকে ছবি দেখে কৃষকের বাড়িতে এসে বা খামারে এসে ক্রেতারা যে পরিমাণ গরু ক্রয় করেছেন তার সংখ্যাও এর তিন থেকে চারগুণ হবে বলে জানিয়েছে ডিএনসিসি।

গতকাল শুক্রবার (৩১ জুলাই) বিকেলে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের এক যৌথ অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা উত্তর করপোরেশন এবং ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর আয়োজনে কুরবানি পশু বিক্রির অনলাইন প্লাটফর্ম ‘ডিজিটাল হাট’ (www.digitalhaat.net) ও সারাদেশে অনলাইনে গরু ক্রয় বিক্রয় সংক্রান্ত বিষয়ে গণমাধ্যমকে অবহিত করতে এই অনলাইন সংবাদ সম্মেলন এর আয়োজন করা হয়।

ডিজিটাল হাট সম্পর্কে ডিএনসিসির মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘এই বিশাল কর্মযজ্ঞ সফল করতে গিয়ে ডিএনসিসি, আইসিটি ডিভিশন ই-ক্যাব, আইএসএসএল, ধানসিড়ি ও সাদিক এগ্রোর সম্মিলিত টিমকে রাত দিন পরিশ্রম করতে হয়েছে। নানা ধরনের জটিল ইস্যু ছিল এগুলো তারা আন্তরিকতার সাথে সমাধান করেছে। চারশ গরু স্লটারিং করার ব্যবস্থাপনা আমি নিজে তদারক করছি।’

ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার বলেন, ‘ক্রেতাদের সুবিধা এবং উদ্যোক্তাদের সুবিধা দুটোই আমাদের দেখতে হয়েছে। শুধুমাত্র ডিজিটাল হাট প্ল্যাটফর্মকে ঘিরে এবার বেশ কয়েকজন নতুন অনলাইন উদ্যোক্তাও তৈরি হয়েছে।’

বাংলাদেশ ডেইরি ফার্ম অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিন্টে মোহাম্মদ ইমরান হোসেন বলেন, ‘এই বিশাল কর্মযজ্ঞে ধাপে ধাপে মান বজায় রাখতে হয়েছে। বিশেষ করে নতুন করে যেহেতু ক্রেতাদের এই অনলাইন ব্যবস্থায় অভ্যাস করার জন্য তাদের সন্তুষ্টিকে আমরা প্রাধান্য দিয়েছি। কারণ তারা নতুন এই প্লাটফর্মের ওপর আস্থা রেখেছেন।’

সারাবাংলা/এসএইচ/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন