বিজ্ঞাপন

একই ময়লার ঘর দুইবার উদ্বোধন, সাঈদের পর উদ্বোধনে তাপস

August 3, 2020 | 12:11 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের উদ্বোধন করা ময়লা রাখার ঘর (সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন-এসটিএস) ৪ মাস পর ফের উদ্বোধন করেছেন বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। সেখানে সাবেক ও বর্তমান মেয়রের নামে পৃথক দুটি নামফলকও ঝুলছে। ঘটনাটি পুরান ঢাকার নয়াবাজার এলাকার।

বিজ্ঞাপন

গত ২৫ মার্চ ওই এলাকায় ডিএসসিসির ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের ফ্রেন্স রোডের জনতা মার্কেটের পাশে ময়লা রাখার ঘরটির উদ্বোধন করেন তৎকালীন মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। সে সময় নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বিবেচনায় উদ্বোধন কার্যক্রমটি নিজ দফতর থেকে অনলাইনে সম্পন্ন করেন সাঈদ খোকন। উদ্বোধনের চার মাস পর গত ৩০ জুলাই ফের উদ্বোধন করলেন বর্তমান মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, একই বর্জ্য ঘরের কাছাকাছি পৃথক সময়ে উদ্বোধন করা দুই মেয়রের নামে দুটি নামফলক ঝুলছে।

বিজ্ঞাপন

একই ময়লার ঘর দুইবার উদ্বোধন, সাঈদের পর উদ্বোধনে তাপস

জানতে চাইলে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবু সাঈদ সারাবাংলাকে বলেন, ‘সাবেক মেয়র যখন উদ্বোধন করেছেন তখন আমি ছিলাম না। আমাকে জানানোও হয়নি। রংয়ের কাজসহ আরও কিছু কাজ বাকিও ছিল তখন। তাই এবার কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর সেটি উদ্বোধন করেছেন বর্তমান মেয়র।’

বিজ্ঞাপন

তাহলে সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের সময় উদ্বোধনের নামফলকে সার্বিক তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে আপনার (কাউন্সিলর আবু সাঈদ) নাম উল্লেখ করা হয়েছে কেন? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘হয়ত করপোরেশনের কর্মকর্তারা বসিয়েছে। আমাকে না জানিয়ে। আর এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না।’

তবে এ বিষয়ে ডিএসসিসি'র মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের ব্যবহৃত মোবাইলে কল করলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

বিজ্ঞাপন

পরে এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শাহ মো. এমদাদুল হক সারাবাংলাকে বলেন, ‘এটি সাবেক মেয়রের উদ্বোধনের কথা ছিল। সে জন্য নাম ফলক বসানো হয়েছিল। তবে সে সময় তিনি উদ্বোধন করতে পারেননি। তাই বর্তমান মেয়র উদ্বোধন করেছেন।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএসসিসির সাবেক মেয়র সাঈদ খোকন সারাবাংলাকে বলেন, ‘গত ২৫ মার্চ করোনার কারণে অনলাইনে এসটিএসটির উদ্বোধন করেছিলাম। সে সময় ডিএসসিসির নির্বাহী প্রধান এবং কাউন্সিলরসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা অংশ নিয়েছিল অনলাইনে।’

বিজ্ঞাপন

যদি আপনি উদ্বোধন করেই থাকেন তবে আবার কেন উদ্বোধন করা হল? এমন প্রশ্নে সাঈদ খোকন বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার কিছু-ই বলার নেই।’

বিষয়টি স্পষ্ট করে পুনারায় ডিএসসিসির সিইও'র কাছে জানতে চাইলে এমদাদুল হক বলেন, ‘এটি ছোট-খাটো বিষয়। এটি ভুল বুঝাবুঝি থেকে হতে পারে।’

তবে নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক ডিএসসিসির সংশ্লিষ্ট কয়েকজন কর্মকর্তারা বলছেন, আগে উদ্বোধনের বিষয়ে বর্তমান মেয়রকে হয়ত জানানো হয়নি। হয়ত সে কারণে তিনি এটি উদ্বোধন করতে পারেন। যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে কর্মকর্তাদের আরও দায়িত্বশীল হওয়া উচিত।

সারাবাংলা/এসএইচ/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন