বিজ্ঞাপন

বৈরুতে জরুরি খাদ্য ও চিকিৎসাসেবা পাঠানোর কথা ভাবছে ঢাকা

August 5, 2020 | 8:12 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: লেবাবনের রাজধানী বৈরুতের বন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণে থমথমে অবস্থায় রয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত শহরটি। এমন অবস্থায় বৈরুতের পাশে থেকে দেশটিকে সাহস দিতে চায় ঢাকা। পাশাপাশি লেবাননে জরুরি খাদ্য ও চিকিৎসাসেবা পাঠানোর কথাও ভাবা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর আল মুস্তাহিদুর রহমান এক ভিডিওবার্তায় বলেন, ‘ঘটনার পর থেকেই প্রধানমন্ত্রী খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। পররাষ্ট্র ও প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন, যেন এখানকার প্রবাসী বাংলাদেশিরা ভালো থাকেন। এ ছাড়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন ঘটনার পর থেকে এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকবার দফায় দফায় ফোন দিয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছেন এবং প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিয়েছেন।’

আরও পড়ুন- বৈরুত বিস্ফোরণে ২ বাংলাদেশি নিহত

রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, ‘এই ঘটনায় লেবাননকে সহায়তা করতে কোনো ধরনের জরুরি খাদ্য বা চিকিৎসাসেবা পাঠানো যায় কি না, সেটা দেখার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রস্তাব দিয়েছেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, এই মুহূর্তে আমাদের দেশ থেকে যদি চিকিৎসা বা খাদ্য সহায়তা আসে, তাতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে। সেই সঙ্গে লেবাননের সঙ্গে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে।’

বিজ্ঞাপন

বৈরুত বন্দরে বিস্ফোরণের ঘটনা বিষয়ে রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর আল মুস্তাহিদুর রহমান বলেন, ‘দুইটি অতি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিস্ফোরণ ঘটে। এতে লেবাননের জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এ পর্যন্ত প্রায় একশ জন মারা গেছেন, এবং ৪ হাজার আহত হয়েছেন। লেবাননে প্রায় দেড় লাখ বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশায় কর্মরত। এই ঘটনায় চিকিৎসারত অবস্থায় দু’জন বাংলাদেশি মারা গেছেন। এছাড়া ৮০ জন বাংলাদেশি আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে আট জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। বৈরুতের বাংলাদেশ দূতাবাস সার্বক্ষণিকভাবে লেবানন প্রবাসীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে এবং প্রয়োজনীয় খাদ্য ও পানীয় এবং চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে।’

আরও পড়ুন- বৈরুত বিস্ফোরণ: বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২১ সদস্য আহত

তিনি আরো বলেন, ‘বিস্ফোরণের ঘটনাস্থলে সমুদ্র বন্দরে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একটি জাহাজ বিএনএস বিজয় রয়েছে। বিস্ফোরণস্থল থেকে তার দূরত্ব ছিল মাত্র ২০০ গজ। ঘটনার খবর পাওয়ামাত্র দূতাবাস থেকে বন্দরে গিয়ে জাহাজের ক্যাপ্টেনের সঙ্গে দেখা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়। জাহাজটির কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। জাহাজের অফিসার এবং নাবিক মিলে প্রায় ১৮ জন আহত হয়েছেন। তাদের সবাইকেই চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য জাতিসংঘের হাসপাতালসহ একাধিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। তাদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা ছিল আশঙ্কাজনক। তাদের বৈরুতের আমেরিকান হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। এর মধ্যে একজন চিকিৎসাসেবা নিয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করলেও আরেকজনের অবস্থা সংকটাপন্ন থাকায় তিনি এখনো ওই হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন-

বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, নিহত ১০

বৈরুত বিস্ফোরণ: মৃত ৭৮, আহত ৪ হাজার

বিজ্ঞাপন

বৈরুতে বিস্ফোরণে নিহত বেড়ে ৫০, আহত ৩ হাজার

সারাবাংলা/জেআইএল/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন