বিজ্ঞাপন

পোর্ট কানেক্টিং সড়ক ৫ দিনের মধ্যে খোলার নির্দেশ চসিক প্রশাসকের

August 6, 2020 | 8:52 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: আড়াই বছর ধরে চলা নগরীর পোর্ট কানেক্টিং (পিসি) সড়কের সংস্কার কাজে আরও গতি আনার নির্দেশ দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন। যান চলাচলের উপযোগী করে পাঁচদিনের মধ্যে সড়কটি খুলে দেওয়ার নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি। প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার প্রথমদিনেই সড়কটি পরিদর্শনে গিয়ে কঠোর বার্তা দিয়েছেন সুজন।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) দুপুরে সড়কটি পরিদর্শনে গিয়ে প্রশাসক সুজন আগামী নভেম্বরের মধ্যে সড়কটির সংস্কার কাজ শেষ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। এর আগে, সাময়িকভাবে সড়কের গর্তগুলো ভরাট করে যান চলাচলের উপযোগী করার নির্দেশ দেন তিনি।

চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যবোঝাই যানবাহন চলাচলের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ৫.৭ কিলোমিটার দীর্ঘ ও ১২০ ফুট প্রস্থের পিসি রোড। জাইকার অর্থায়নে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু করে সিটি করপোরেশন ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে। কয়েক দফা সময় বাড়িয়ে প্রকল্পের কাজ শেষ করার কথা ছিল চলতি বছরের জুনে। কিন্তু সড়কটির কাজ শেষ হয়নি।

চসিকের চেয়ারে সুজন, দুর্নীতিবাজদের ‘তওবা’ করতে বললেন

বিজ্ঞাপন

প্রশাসক হিসেবে নিযুক্ত হবার খবর পাওয়ার পর খোরশেদ আলম সুজন সাংবাদিকদের বলেছিলেন, চট্টগ্রাম শহরের ভাঙাচোরা রাস্তাঘাট সংস্কার করাই হবে তার প্রথম কাজ। দায়িত্ব নেওয়ার প্রথমদিনে সেই ‘ভাঙাচোরা’ সড়ক পরিদর্শনে গিয়ে সুজন বলেন, ‘চট্টগ্রাম নগরীতে পোর্ট কানেকটিং সড়কটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু দীর্ঘসূত্রিতায় নিমজ্জিত হয়ে বছরের পর বছর এই সড়কের উন্নয়নকাজ সম্পন্ন হয়নি। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। এনিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর মনে ক্ষোভ সৃষ্টি ও চট্টগ্রামের সৌন্দর্য ও সুনামের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিগত দিনে যে সময় গড়িয়েছে এখন আর সময়ক্ষেপনের কোনো সুযোগ নেই। এই সড়কে আগামী ৫ দিনের মধ্যে রাস্তায় যত গর্ত রয়েছে তা ভরাট করে যান চলাচলের উপযোগী ও আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যে অবশ্যই কাজ সম্পাদন করতে হবে।’

পরিদর্শনের সময় চসিকের প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমেদ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবু ছালেহ, নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সাদাত মোহাম্মদ তৈয়ব, ঠিকাদার মোহাম্মদ মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী, ১১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ ইসমাইল, সাধারণ সম্পাদক মো. আসলাম ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন