বিজ্ঞাপন

‘সবাইকে কাজে যোগদানে বাধ্য করে মরণযজ্ঞ তৈরি করছে সরকার’

August 7, 2020 | 9:24 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

কুড়িগ্রাম: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘সরকার অফিস-আদালত খুলে সবাইকে যোগদানের জন্য নির্দেশ দিয়েছে মানুষকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য নয়, নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য। নিজেদের পকেট ভারি করার জন্য। কোটি কোটি মানুষকে বিনা চিকিৎসায় ঠেলে দিয়ে ভয়ঙ্কর মরণযজ্ঞ তৈরি করেছে।’

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (৭ আগস্ট) সকালে কুড়িগ্রামের নিজ বাসভবন থেকে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, ‘করোনার মধ্যে সরকার অফিস-আদালত খুলে দিয়েছে। সবাই এর নিন্দা জানিয়েছে। এই সরকারের ব্যর্থতার কারণে ঢাকাসহ সারাদেশে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে। মানুষকে সচেতন করে করোনা মোকাবিলা না করে অফিস-আদালত খুলে দিয়ে মানুষকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। দেশের স্বাভাবিক অবস্থা বোঝানোর জন্য করোনা আক্রান্ত হচ্ছে না বলে ভুল তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। আর তলে তলে সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে করোনার সংক্রমণ বাড়াতে সহায়তা করছে।’

সরকার অন্য কোনো দেশের চামড়া শিল্পের বিকাশ সাধনের জন্য নিজ দেশের চামড়া শিল্পকে পরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘যে সরকার দিনের বেলা ভোট করতে ভয় পায়, রাতের বেলা ভোট করে সে সরকার মানুষের কল্যাণে কাজ করবে না সেটাই স্বাভাবিক। এবার আমরা দেখেছি কোরবানির চামড়া নিয়ে তেলেসমাতি। সরকারের গণবিরোধী নীতির কারণেই চামড়া শিল্প ধ্বংস হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

এসময় বন্যা ও করোনা মোকাবিলা এবং চামড়া শিল্পে প্রণোদনা দিয়েছে বাঁচানোর দাবি জানান রুহুল কবির রিজভী।

সারাবাংলা/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন