বিজ্ঞাপন

স্পুটনিক-৫ নিয়ে উদ্বেগ ভিত্তিহীন: রাশিয়া

August 12, 2020 | 11:14 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিশ্বের প্রথম করোনা টিকা স্পুটনিক-৫ নিয়ে উদ্বেগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে রাশিয়া । খবর রয়টার্স।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১২ আগস্ট) রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো বলেছেন, করোনা টিকা নিয়ে রাশিয়া ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে এমন ভেবে নিয়ে পশ্চিমা বিশেষজ্ঞরা যে উদ্বেগ দেখাচ্ছেন তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন।

এর আগে, দুই মাসেরও কম সময় ট্রায়ালের মাধ্যমে স্পুটনিক-৫ করোনা টিকার অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়া - এমন দাবি তুলে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ মহল এ টিকা নিরাপদ কিনা তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল।

তারই জবাবে মস্কোর পক্ষ থেকে রাশিয়ান স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওই উদ্বেগকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিলেন।

বিজ্ঞাপন

এদিকে মিখাইল মুরাশেকা বলেন, রাশিয়ার করোনা টিকা খুব শিগগিরই সহজলভ্য হবে। দুই সপ্তাহের মধ্যেই চলে আসবে টিকার প্রথম ব্যাচের ডোজগুলোর উৎপাদন সম্পন্ন হবে। প্রথম অবস্থায় টিকা পাবেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।

এরই মধ্যে কিছু কিছু দেশ রাশিয়ার করোনা টিকা স্পুটনিক-৫ এর ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছে। ওই তালিকায় রয়েছে ব্রাজিল, ফিলিপাইন, ইসরায়েলের নাম।

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানিসহ ইউরোপের দেশগুলোতে স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা টিকাটি নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

বিজ্ঞাপন

রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্পুটনিক-৫ করোনা টিকাকে খুবই কার্যকর ও নিরাপদ হিসেবে উল্লেখ করলেও ইউরোপের ফ্রেঞ্চ ন্যাশনাল সেন্টারের এক গবেষক বলছেন, টিকায় এত দ্রুত রোগ থেকে আরোগ্য হচ্ছে যে টিকার ওপর এমন আস্থা খুবই বিপজ্জনক হয়ে দাঁড়াতে পারে। কারণ হিসেবে রাশিয়ার ট্রায়াল পদ্ধতি সম্পর্কে বহিঃবিশ্বে কোনো তথ্য না থাকার কথা উল্লেখ করেন।

পাশাপাশি, যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যালেক্স আজারও প্রথম টিকা নয়, বরং টিকাটি যেনো বিশ্বের মানুষের জন্য নিরাপদ ও কার্যকর হয় তার ওপরই গুরুত্ব দিয়েছেন।

অপরদিকে, বিশ্বজুড়ে রাশিয়ার করোনা টিকা নিয়ে এ উদ্বেগ এবং সমালোচনার মধ্যেই মস্কোভিত্তিক অ্যাসোসিয়েশন অব ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল অরগানাইজেশন (অ্যাক্টো) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে আহ্বান জানিয়ে বলেছে টিকাটির তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা না হওয়া পর্যন্ত এর অনুমোদন যেনো পিছিয়ে দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে অ্যাক্টোর নির্বাহী পরিচালক সেভেৎলানা জাভিদোভা স্থানীয় এক গণমাধ্যমকে বলেছেন, টিকাটি দুই ধাপ পরীক্ষার পর গণহারে প্রয়োগের সিদ্ধান্ত হয়েছে, এত ক্ষুদ্র পরিসরে পরীক্ষার ভিত্তিতে টিকার কার্যকারিতা নিশ্চিত করা অসম্ভব।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন