বিজ্ঞাপন

অ্যাটলেটিকোর বিদায়, সেমিতে লাইপজিগকে পেল পিএসজি

August 14, 2020 | 6:16 am

স্পোর্টস ডেস্ক

স্বপ্নময় পথচলায় আরেকধাপ এগুলো লাইপজিগ। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে বিদায় করে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে মাত্র ১১ বছর আগে ফুটবল আঙিনায় পা রাখা জার্মানির ক্লাবটি। এক লেগের কোয়ার্টার ফাইনালে অ্যাটলেটিকোকে ২-১ গোলে হারিয়েছে লাইপজিগ।

বিজ্ঞাপন

সেমিতে লাইপজিগের প্রতিপক্ষ ফরাসি জায়ান্ট পিএসজি। একদিন আগে আতালান্তাকে ২-১ গোলে হারানো পিএসজি হয়তো মনে মনে একটু খুশিই হলো! শক্তি আর ঐতিহ্যের দিক দিয়ে যে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের অনেকটাই নিচে লাইপজিগ।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) রাতে অবশ্য অ্যাটলেটিকোর চেয়ে ভালো ফুটবল খেলল জার্মানির ক্লাবটিই। অ্যান্থনি গ্রিজম্যান ক্লাব ছাড়ার পর জৌলুস কমেছে অ্যাটলেটিকোর। এই ম্যাচের আগে যোগ হয়েছিল আরেকটা দুঃসংবাদ। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন ফরোয়ার্ড অ্যাঞ্জেলো কোররেয়া ও ডিফেন্ডার সিমে ভারসালিকো। এই ধাক্কার কারণেই কিনা চাপের মুখে ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি স্প্যানিশ ক্লাবটি।

গতি আর নিখুঁত পাসে পুরো ম্যাচেই ছড়ি ঘুরিয়েছে লাইপজিগ। প্রথমার্ধে বলের দখল বা আক্রমণ দুটিতেই এগিয়ে ছিল জার্মান ক্লাবটি। কিন্তু অ্যাটলেটিকোর জমাট রক্ষণ ভাঙতে পারেনি। গোলশূণ্য প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল পেয়ে যায় লাইপজিগ।

বিজ্ঞাপন

৫০ মিনিটে ডান দিক থেকে সতীর্থের ক্রসে দুর্দান্ত এক হেড করে জার্মান ক্লাবটিকে ১-০ তে এগিয়ে নেন ডেনি ওলমো। গোল খেয়ে মরিয়ে হয়ে ওঠে অ্যাটলেটিকো। বলে দখল আর আক্রমণে ধার বাড়ায় স্পেনের ক্লাবটি। ৭১ মিনিটে পেনাল্টি পেয়ে যায় অ্যাটলেটিকো। ডি-বক্সের ভেতর ফাউলের শিকার হন জো ফেলিক্স। নিজেই পেনাল্টি নিয়ে গোল করতে ভুল করেননি পর্তুগালের এই তরুণ ফরোয়ার্ড, ১-১ গোলে সমতা।

এরপর একটা গোলের জন্য প্রাণপন চেষ্টা করে গেছে দুই দলই। ম্যাচের শেষভাগে গিয়ে সেটা পেয়েছে লাইপজিগ। নির্ধারিত সময়ের দুই মিনিট আগে অ্যাটলেটিকোর কফিনে শেষ প্যারেকটি ঠুকে দেন টেইলর অ্যাডামস। বক্সের সামান্য সামনে বল পেয়ে জোড়ালো শটে গোল করেন অ্যাডামস। তাতেই অ্যাটলেটিকোর বিদায় আর প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যায় লাইপজিগের।

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন