বিজ্ঞাপন

সিনহা হত্যা মামলার নতুন তদন্ত কর্মকর্তা, ৪ পুলিশসহ ৭ জন রিমান্ডে

August 14, 2020 | 5:07 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: কক্সবাজারের টেকনাফে মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করা হয়েছে। এ মামলায় নতুন তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে কাজ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে র‌্যাবের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মোহাম্মদ খায়রুল ইসলামকে। দায়িত্ব পাওয়ার পর কারাগারে থাকা গ্রেফতার ৪ পুলিশসহ সাতজনকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১৪ আগস্ট) দুপুরে সারাবাংলাকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাবের মুখপাত্র লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ। তিনি বলেন, ‘নতুন তদন্ত কর্মকর্তা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার খায়রুল ইসলাম মেধা, দূরদর্শী ও বিচক্ষণতার বিবেচনায় যথেষ্ট দক্ষ কর্মকর্তা। তিনি অতীতে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে সুনাম ও সফলতার সঙ্গে পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছিলেন। তাই তাকে এ মামলার তদন্তভার দেওয়া হয়েছে।’

উল্লেখ্য, গত ৩১ জুলাই রাতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এরপর ৫ আগস্ট সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌসের দায়ের করা হত্যা মামলার পর র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জামিল আহমদকে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। এরপর টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপসহ ৭ পুলিশ এবং তাদের সোর্স হিসেবে নিয়োজিত সন্দেহজনক ৩ জনসহ মোট ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল।

গ্রেফতারকৃতদের সর্বশেষ সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

বিজ্ঞাপন

র‍্যাব সূত্র জানায়, সিনহা হত্যা মামলায় রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া চার পুলিশ সদস্য কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়া এবং সন্দেহজনক তিন আাসামি টেকনাফের বাহারছরার মারিশবনিয়া এলাকার নাজিম উদ্দিন নাজুর ছেলে নুরুল আমিন, নজির আহমদের ছেলে নিজাম উদ্দিন ও জালাল আহমদের ছেলে মোহাম্মদ আয়াছকে র‌্যাবের নতুন তদন্ত কর্মকর্তা খায়রুল ইসলামের নেতৃত্বে সকালে জেলা কারাগার থেকে রিমান্ডের জন্য র‍্যাবের হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

এর আগেও এক দফা ৮ ও ৯ আগস্ট জেলগেইটে চার আসামি কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। সে সময় গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য পান তৎকালীন তদন্ত কর্মকর্তা। তাই আরও বিশদ তথ্যের জন্য তাদেরকে ফের ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল। পরে ১২ আগস্ট শুনানি শেষে তাদের প্রত্যেকের সাতদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালতের বিজ্ঞ বিচারক সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ্।

আরও পড়ুন
‘সিনহা নিহতের ঘটনা বিচ্ছিন্ন, যৌথ তদন্ত চলছে
লিয়াকতসহ ৯ পুলিশের বিরুদ্ধে সিনহার বোনের মামলা
সিনহা হত্যা মামলা: ওসি প্রদীপ, ইন্সপেক্টর লিয়াকত কারাগারে
সিএমপির হেফাজতে ওসি প্রদীপ, নেওয়া হচ্ছে কক্সবাজার আদালতে
পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজরের মৃত্যু: তদন্ত কমিটি
মেজর সিনহার মাকে টেলিফোন, বিচারের আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর
পুলিশের গুলিতে মেজর সিনহার মৃত্যু: আরও ‘শক্তিশালী’ তদন্ত কমিটি

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচ/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন